উৎপল ঘোষ,(ক্রাইম রিপোর্টার)যশোরঃ যশোরে মদ্যপ অবস্থায় মাইক্রোবাস চালানোয় দুর্ঘটনায় ১ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় এসপি বাংলো ও পুলিশ লাইনের সামনে দুর্ঘটনায় এই হতাহতের ঘটনাটি ঘটে। মাইক্রোবাস চালক জাবির হাসান (১৭) গণপিটুনির শিকার হয়েছে। নিহতের নাম হরেন (৫০)। তিনি শহরের পালবাড়ি মোড়ের মৃত পুলিনের ছেলে। আহতরা যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ও পুলিশ লাইন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তারা হলেন যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের নুর ইসলামের ছেলে রিকশা চালক আলআমিন (৩০), পুলিশ লাইন এলাকার অমরেশের ছেলে হিমেল (৮), লুৎফর রহমানের ছেলে মাজেদুল ইসলাম (২৬) ও কারবালা রোডের ওয়াবদা গ্যারেজ এলাকার মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে মামুন (৪০)।

পুলিশ ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পুলিশ লাইন এলাকার ব্যবসায়ী জাহির হাসানের ছেলে কিশোর জাবির হাসান মদ্যপ অবস্থায় বেপরোয়া গতিতে মাইক্রোবাস চালাচ্ছিলো। এসময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্লিখিত ৫ জনকে ধাক্কা দেয়। এসময় হরেন ও আল আমিনকে গুরুতর অবস্থায় যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকি ৩ জনকে নিয়ে যাওয়া হয় পুলিশ লাইন হাসপাতালে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাড়ে ৭ টার দিকে হরেন মারা যায়। এদিকে, দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা ক্ষুব্ধ হয়ে মদ্যপ চালক জাবিরকে গণপিটুনি দিয়েছে। সেও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এলাকাবাসী জানায়, জাবির হাসান একজন মাদকসেবী। মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোর কারণে পথচারীরা প্রায় দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ইনচার্জ ডা. আব্দুর রশিদ জানান, ভর্তির সময় ভর্তির সময় হরেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিলো। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হতে পারে। আহত আলআমিনের অবস্থা গুরুতর।