নিজস্ব প্রতিবেদক

গত বসন্তে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের স্মৃতি ফিরে আসছে ভারতে; করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সুনামিতে এক দিনেই শনাক্ত হয়েছে ৯০ হাজার ৯২৮ জন নতুন রোগী।

রয়টার্স জানিয়েছে, এক দিনে শনাক্ত রোগীর এই সংখ্যা আগের দিনের চেয়ে ৫৭ শতাংশ বেশি। মঙ্গলবার সব মিলিয়ে ৫৮ হাজার ৯৭ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছিল।

মহামারীর দুই বছরে সব মিলিয়ে সাড়ে তিন কোটির বেশি মানুষের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য এসেছে ভারত সরকারের খাতায়।

কোভিড আক্রান্তদের মধ্যে বুধবার আরও ৩২৫ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে ভারতের স্বাস্থ্য বিভাগ। তাতে সব মিলিয়ে কোভিডে মৃত্যুর মোট সংখ্যা ৪ লাখ ৮২ হাজার ৮৭৬ জনে পৌঁছেছে।

এদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা আন্তজার্তিক চেকপোস্টে দিন দিন যাত্রী সংখ্যা কমে যাচ্ছে ভারতে ওমিক্রন বৃদ্ধি পাওয়ায়। যে কোন মুর্হেতে বন্ধ হয়ে যেতে পারে দর্শনা আন্তজার্তিক চেকপোস্ট।

গত ১৯ শে সেপ্টেম্বর ২০২১ সালে দুই দেশের করোনোভাইরাস কম হওয়ায় চালু হয় দর্শনা চেকপোষ্ট। আবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গে করোনাভাইরাস ওমিক্রন বৃদ্ধি পাওয়া এবং তা মোকাবেলায় দর্শনা আন্তর্জাতিক চেকপোস্টে গত মঙ্গলবার থেকে সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে যাত্রী যাতায়াত করছে।

দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা: আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ জানান দর্শনা চেকপোস্টে নিয়োজিত স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে ভারতফেরত পাসপোর্ট যাত্রীদের স্ক্রিনিং ও র‌্যাপিড এন্ট্রিজেন পরীক্ষার পর দর্শনা কাস্টমস ও ইমিগ্রেশনে পাঠাচ্ছেন। সাথে সাথে ভারত গমনকারীদেরও স্ক্রিনিং করিয়ে পাঠানো হচ্ছে।

দর্শনা ইমিগ্রেশন ওসি মো: আব্দুল আলীম জানান পশ্চিমবঙ্গে করোনাভাইরাস ও ওমিক্রন বৃদ্ধি ও সেখানে নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করায় দর্শনা আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত অর্ধেকেরও কমে নেমে এসেছে।

গত মঙ্গলবার ও বুধবার পাসপোর্টধারী যাত্রী সংখ্যা ছিলো ৩শ ও ২শ ৫০ জনের মতো। গত সপ্তাহে ছিলো ৪ শ থেকে ৫ শ জনের মতো।ভারতে পশ্চিমবঙ্গে করোনাভাইরাস দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় যাত্রী সংখ্যা কমে যাচ্ছে বলে জানান দর্শনা ইমিগ্রেশনের ইনচার্জ এস আই আঃ আলিম।