বি. চৌধুরী তুহিন, নিজস্ব প্রতিনিধি, নোয়াখালী : সুবর্ণচর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ২নং চরবাটা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মরহুম হাজী মোশারেফ হোসেনের স্ত্রী, বর্তমান চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন-এর গর্বিত মাতা ‘রহিমা খাতুন’-এর শোক সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে। হাজি মোশাররফ হোসেন স্কুল এন্ড কলেজের আয়োজনে কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত শোক সভায় অধ্যক্ষ নিরঞ্জন চন্দ্র নাথের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন রব্বানিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার প্রভাষক মিজানুর রহমান, বিশেষ অতিথি ছিলেন চরবাটা ইউপি চেয়ারম্যান মরহুমার বড় পুত্র মোজাম্মেল হোসেন, কবিরহাট সরকারি কলেজের প্রভাষক সফিকুল ইসলাম সাজু, চরমজিদ ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আকবর হোসেন শাহানাজ ।আরোও বক্তব্য রাখেন, মরহুমার ছোট পুত্র দেলোয়ার ইবনে হোসেন, হাজি মোশারেফ হোসেন স্কুল এন্ড কলেজের সহকারি প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) বাবু বিক্রম মাতাব্বর, সহকারি শিক্ষক মাওলানা আবুল কাশেম, সাংবাদিক কামাল চৌধুরী, আবদুল মালেক উকিল জুনিয়র হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ পারভেজ, মরহুমার ছোট জামাতা রিয়াজ উদ্দিন শাকিল, শেখ ফরিদ। এছাড়াও মরহুমার পরিবারবর্গ, জনপ্রতিনিধি ও শিক্ষকমÐলি, স্থানীয় শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা মরহুমা রহিমা খাতুনের স্বামী হাজি মোশারেফ হোসেনের পরিবারের সামাজিক অবদান, রাজনৈতিক অবদান ও প্রাথমিক শিক্ষা থেকে শুরু করে উচ্চশিক্ষা বিস্তারের ক্ষেত্রে রহিমা খাতুনের গুরুত্বপ‚র্ণ অবদানের কথা উলে­খ করে মোনাজাতের মাধ্যমে মরহুমার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। বিশেষ করে বক্তারা-মরহুমা রহিমা খাতুনের স্মরণে একটি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার জন্য অনুরোধ জানান। উক্ত দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এ ব্যাপারে মরহুমার পরিবার বর্গসহ উপস্থিত শিক্ষা সচেতন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ “রহিমা-মোশারেফ ডিগ্রি কলেজ” প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করেন। এতে উপস্থিত সকলে আশা প্রকাশ করেন, ইতিবাচক পরিবেশ বিদ্যমান থাকলে হাজী মোশারেফ হোসেন স্কুল এন্ড কলেজের পাশাপাশি আগামী কয়েক শিক্ষাবর্ষের মধ্যে “রহিমা-মোশারেফ ডিগ্রি কলেজ” নামে একটি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হবে। উলে­খ্য- রহিমা খাতুন গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাত ১২.১৫ মিনিটে মধ্য চরবাটাস্থ নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন।