মোস্তাফিজুর রহমান, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে বাড়িতে তিনদিন আটকে রেখে নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য মোজাম্মেল হকের নির্যাতনে আনোয়ারুল ইসলাম (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।বুধবার (১২ জানুয়ারি) রাতে রংপুর মেডিক্যাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় মোজাম্মেল।

 

পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য মোজ্জাম্মেল হক, তার ছোটভাই মোশারফ হক ভুট্টু ও ছেলে সুজন জেলার আদিতমারী উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের মদনপুর গ্রামের মজিবরের ছেলে আনোয়ারুল ইসলামকে বাড়িতে ডেকে এনে আটকে রাখে। তাকে উদ্ধার করতে একই গ্রামের কুদ্দুসের ছেলে রোকনুজ্জামান গেলে তাকেও আটকে রাখা হয়।

 

 

সূত্রে আরও জানা যায়, ৩ হাজর টাকার জন্য এই দুই জনের ওপর চলে ৩দিন ধরে নির্যাতন। তাদের উদ্ধারে স্বজনরা ৯৯৯ এ ফোন দিলে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই জহুরুল হক মেম্বারের বাড়িতে গত ৫ জানুয়ারি বুধবার তল্লাশি চালায়। এসময় ইউপি সদস্য মোজ্জাম্মেল হককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে অপহরণের কথা অস্বীকার করে।

 

 

পরে পুলিশ থানায় ফিরে এলে গোপন আস্তানায় আটক দুইজনের ওপর অত্যাচার আরও বেড়ে যায়। পরে বিষয়টি স্বজনরা পুনরায় পুলিশকে বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) জানালে পুলিশ ইউপি সদস্যের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে তাদের দুইজনকে উদ্ধার করে। আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল বুধবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজন মারা যায়।

 

 

চলবলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।এ বিষয়ে কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম রসূল জানান, এ পর্যন্ত পুলিশ দুইজনকে আটক করেছে। বাকি আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে।