অমিত কর্মকার, লোহাগাড়া প্রতিনিধিঃ কক্সবাজার মহাসড়কে লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি জাঙ্গালিয়া ফরেষ্ট অফিস এলাকায় চট্টগ্রাম অভিমুখী লবনবোঝাই ট্রাক (ঢাকা মেট্টো-ট-২২-৩৯৪৮) সাথে চকরিয়া অভিমুখী ম্যাজিক গাড়ীর সাথে মুখামুখি সংঘর্ষে নিহত ১৪ ও আহত ৭। গত ২১ মার্চ রাত সাড়ে ১০ টার দিকে মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনাটি ঘটেছে। নিহতরা হলেন যথাক্রমে আজিজনগর উত্তর হারবাং রোড পাড়ার আব্বাস আহম্মদের পুত্র জসিম উদ্দিন (২৮), তার ছোট ভাই বেলাল হোসেন তাওরাত (১৭), বান্দরবান নাইক্ষ্যাংছড়ি বাইস আরী ইউনিয়নের কালামিয়া সিকদারের পুত্র কৃষি ব্যাংক কর্মকর্তা মুহাম্মদ বাদশা (৩৮), চকরিয়া উত্তর হারবাং মৃত আমির হোসেনের পুত্র মোঃ আব্দুল ছালাম (৭০), চুনতি মিরখিল এলাকার আবদুর রশিদের পুত্র সিরাজ ইসলাম মিস্রি(৪০),বড়হাতিয়ার হরিদাঘোনা এলাকার মৃত আবদুল মাবুধের পুত্র রুবেল (২০), উপজেলা সদর ইউনিয়নের লোহারদীঘির এলাকার মৃত জাফর আহম্মদের পুত্র জহির (২৮), কলাউজান ইউনিয়নের মোহাম্মদ আবুল হোসেনের পুত্র মোঃ এনাম(৪৫), কক্সবাজার চকরিয়া কাট্টলী পাড়া এলাকার মৃত হামিদুল্লাহ’র পুত্র আব্দুল রশিদ (৬৫),চকরিয়া কাকারা এলাকার সৈয়দ হাজির পুত্র ফরহাদ(২৫),বান্দরবান লামা উপজেলার পুর্ব কাট্টলী আহির নগর এলাকার মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ প্রকাশ রইস্যা (৫০), চকরিয়া গজানিয়া এলাকার নুর হোসেনের পুত্র মোঃ সুমন(১৫), আজিজনগর ভিলেইজার পাড়ার লালু ফকির, আজিজনগর ইসলাম ট্রেডিং এলাকার মোস্তাফিজ খলিফার পুত্র জসিম উদ্দিন ও চকরিয়া উত্তর হারবাং এলাকার মুহাম্মদ নবী হোসেন । এ ঘটনায় লোহাগাড়ার সাইফুল ইসলাম, ১৩ বছরের এক শিশুসহ ৬ জন আহত হয়েছে।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ঘটনাস্থলেই ১২ জন প্রাণ হারায়। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পথে আরো ২ জন নিহত হয়। এ ব্যাপারে দোহাজারী হাইওয়ে থানার ওসি ইয়াসিন আরাফাত জানান, মালবাহী ট্রাকের সাথে পিকআপ গাড়ীর মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক-হেলপার ও ১২ যাত্রীসহ ১৫ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের লাশ থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে এবং দূর্ঘটনাকবলিত ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। খবর পেয়ে লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ জাকের হোসাইন মাহমুদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং খুব দ্রæত যানচলাচল স্বাভাবিক করেন।