নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার গোপালপুর গ্রামের বাবুল শেখের মেয়ে সুমাইয়া খাতুন সুমি (১৭) গতকাল (১৬ মে) চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের নিকট এসে তার পিতার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার উক্ত অভিযোগটির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তার কার্যালয়ে অবস্থিত “উইমেন সাপোর্ট সেন্টার”কে দায়িত্ব প্রদান করেন।

“উইমেন সাপোর্ট সেন্টার” জেলা গোয়েন্দা শাখার সহায়তায় সুমাইয়া খাতুন সুমির বাড়ীতে খোজ নিয়ে জানা যায়, সুমাইয়া খাতুন সুমি শারীরিক ও মানষিক প্রতিবন্ধী। সুমাইয়া খাতুন সুমি সকলের অগোচরে বাড়ী থেকে পালিয়ে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এসে মিথ্যা অভিযোগ করেন।

এরপর চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের নির্দেশে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুমির পরিবারের লোকজনকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে হাজির করেন। চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম এর প্রত্যক্ষ মধ্যস্থতায় শারীরিক ও মানষিক প্রতিবন্ধী সুমাইয়া খাতুন সুমিকে তার পিতা-মাতার কাছে ফিরিয়ে দেন। এসময়ে তিনি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাসহ সকল বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলাবাসীর সহযোগীতা কামনা করেন।

মেয়েকে ফিরে পেয়ে বাবুল শেখ এর মুখে কৃতজ্ঞতার এক অকৃত্রিম হাসি ফুঁটে উঠে এবং তিনি পুলিশ সুপার ও তার পরিবারের সর্বাঙ্গীন মঙ্গল কামনা করেন।