জসীম উদ্দীন, শার্শা উপজেলা প্রতিনিধিঃ যযশোরশোরের শার্শা উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরে মেয়াদোত্তীর্ন ঔষধ দিয়ে পশুপালন চিকিৎসা চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি উপজেলার নাভারন প্রাণিসম্পদ দপ্তরে গিয়ে সরেজমিনে মেয়াদোত্তীর্ন সরকারি ইনজেকশন ও পাউডার দেখা মিলেছে যা অসুস্থ গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগীর রোগ নিরাময়ের জন্য ব্যবহার হচ্ছে। ফলে এলাকাবাসির পশুপালন সফল হচ্ছেনা।

প্রতিনিয়ত গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগী সুচিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছে। প্রতিমাসে লাখ লাখ টাকা গচ্ছা যাচ্ছে খামারি বা চাষিদের। শার্শা উপজেলার নাভারন প্রাণিসম্পদ দপ্তরের র‌্যাকে রক্ষিত অসুস্থ গরু, ছাগলের শরীরে পুশ করার জন্য চৎড়ীধপরহ ইনজেকশনের কাঁচের বোতলের গায়ে মেয়াদ উল্লেখ আছে ২১ মার্চ ২০২১।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন খামারি ও চাষির অভিযোগ, ২৮ এপ্রিল কয়েকজন খামারির অসুস্থ গরু ও ছাগলের দেহে প্রোক্সাসিন ইনজেকশন পুশ করা হয়। ঔষধের ব্যবহারের মেয়াদ উল্লেখ আছে (২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১। এরপরই তাদের কিছু গরু ও ছাগল আরও বেশি অসুস্থ হয়ে যায়।

সরকারি ঔষধ বাইরে বিক্রি করে দিয়ে এসব ঔষধ সবার চোখের আড়ালে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তারা।

শার্শা উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মাসুমা আক্তার বলেন, কিভাবে আমার দপ্তরে মেয়াদোত্তীর্ন ঔষধ এলো আমি বুঝতে পারছিনা। আমার মনে হয় বাইরের কেউ শত্রুতা করে এখানে মেয়াদোত্তীর্ন ঔষধ রেখে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।