এম হসান মুসা, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) থেকে: ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার হাতেমপুর শাহী মসজিদ সংলগ্ন দক্ষিণ পাশে পুকুরের ধারে ২ টি বিরল প্রজাতির গাছ এটি। শতবর্ষী এ গাছ দুটিতে প্রতিবছর ফাল্গুনে নতুন পাতা বের হয় যা দেখতে লাল রঙের। চলার পথে সৌন্দর্য পিপাসু পথিকেরা এর সৌন্দর্য অবলোকন করেন। এ লাল রঙের পাতা পরবর্তীতে সবুজ রং ধারন করে এবং এতে অনেকটা গাব গাছের ফুলের মত দেখতে ফুল ধরে তবে কোনও ফল হতে দেখা যায় না। ফুলের সৌরভে এলাকা বহুদুর পর্যন্ত সুরভিত থাকে। এর পাতা ও আকার-আকৃতি দেশীও গাব গাছের মত দেখতে অনেকে একে গাব গাছ মনে করলেও এটি মূলত অন্য প্রজাতির একটি গাছ। জনশ্রুতি আছে এ বিরল প্রজাতির গাছ দুটি মুঘল বাদশা আকবরের শাহ কুতুব (হাতে খড়ি নেয়া হয় যে গুরুর কাছে) হাতেম শাহ ভারতবর্ষ থেকে এনে লাগিয়ে ছিলেন। মসজিদটি তিনিই প্রতিষ্ঠা করেন গ্রামটির নাম করনও তাঁর নামে করা হয়। প্রখ্যাত ঐতিহাসিক সতিশ মিত্রের “যশোর খুলনার ইতিহাস” বইয়ে এর বিবরণ পাওয়া যায়। তাঁর মাজারটি এখানে বিদ্যমান।