সাভার প্রতিনিধিঃ ঢাকার অনুকূলে সাভারের আশুলিয়া শিল্পাঞ্চল বাংলাদেশের সব জেলার চাইতে সাভার ও আশুলিয়ায় তুলনামুলক শিল্প কল-কারখানা অনেকটাই বেশি তাই এখানে বেশিরভাগ মানুষই গার্মেন্টস শ্রমিক তাঁদের দিনান্তে পান্তা ফুরায় অভাবের তাড়নায় তারা আশুলিয়ায় পাড়ি জমাই জীবিকার তাগিতে। মহামারী করোনা ভাইরাস আতংকের মুখে পড়েছেন আশুলিয়ার শ্রমিক ভাইয়েরা তাই শ্রমিকদের দুঃসময়ে পাশে দাঁড়ালেন আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের সরকারবাড়ীর কৃতিসন্তান, আশুলিয়া থানার যুবলীগের আহবায়ক জনাব মোঃ কবির হোসেন সরকার।

সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে কবির হোসেন সরকার বলেন মহামারী করোনা ভাইরাস উপলক্ষে আমার বাড়ীর ভাড়াটিয়া ও শ্রমিক ভাই ও বোনদের চলতি মাসের ভাড়া আমাকে দিতে হবে না আমি তাদের দুঃসময়ে পাশে আছি থাকবো। যদি করোনা ভাইরাস আরো ভয়ঙ্কর হয়ে দাঁড়ায় তাহলে আরো এক মাসের ভাড়া আমি শ্রমিক ভাই বোনদের মাঝে মাফ করে দিব। কবির হোসেন সরকার আরো বলেন শুধু আমার বাড়ী ভাড়ায় নয় আমার মার্কেটের দোকান দার ব্যবসায়ী ভাইদের ও বাঁড়া মাফ করা হবে, আনুমানিক ৫ লক্ষ টাকার ভাড়া মাপ করা হল।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কবির হোসেন সরকারের করা পোস্টটি হুবুহু তুলে ধরা হলো,করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করার কারণে দেশের সবকিছুই স্থগিত হয়ে গেছে। কর্মজীবী মানুষ কর্মস্থলে যেতে পারছেনা। তাই এদেশের একজন নাগরিক হিসেবে আমার বাড়ির সব ভাড়াটিয়ার চলতি মাসের ভাড়া মাফ করে দিলাম। আমি বলব, বাংলাদেশের সকল বাড়ীওলারা এই দুর্যোগের সময় ভাড়াটিয়াদেও পাশে দাড়ানো উচিত। বাংলাদেশের সব নাগরিককে ঘরে বসে করোনা মোকাবিলায় সহযোগিতা করুণ। আল্লাহ এই দুর্যোগ থেকে রক্ষা করুণ, আমিন

আর করোনা ভাইরাসের সুযোগ নিয়ে যেখানে অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন, সেখানে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার এই সংকটময় সময় ভাড়াটিয়াদের বাড়ীভাড়া মাফ করে দিয়ে উদারতার দৃষ্টান্ত রাখছেন।