ওমর আলী মোল্যা, কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের  কালীগঞ্জ পৌর এলাকার তুমলিয়া গ্রামের সুকুমার পালমা শখের বসে এবার তার ৩৩ শতাংশ জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। একই এলাকার দুবার্টি গ্রামের আব্দুর রহিম ভূইয়া অন্যের জমি বর্গা নিয়ে উপজেলা কৃষি অফেসের অনুপ্রেরণা পেয়ে তৈলজাত এ শষ্যটির চাষ করেছেন।এই তৈলজাত বীজ থেকে প্রাপ্ত তৈল কলোষ্টরল ফ্রি, হার্ট  ও উচ্চ রক্তচাপের জন্য উপকারী হওয়ায় এই ফসলটি আরও বেশি জমিতে চাষ করতে পারলে আমাদের ভুজ্য তেলের আমদানি কমিয়ে দেশের অর্থনৈতিক চাপ  কমানোর অপার সম্ভাবনা  রয়েছে। অপর দিকে এই বীজ থেকে প্রাপ্ত তেলের ব্যাবহার বৃদ্ধি করে দেশের মানুষকে ডায়বেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হার্ড এটাক সহ মরনবেধি ক্যান্সারের হাত থেকে রক্ষা করা যেতে পারে।


স্থানীয়ভাবে কৃষকদের অনাগ্রহের কারণে সূর্যমুখী ফুলের চাষ খুব একটা হয় না। তবে প্রণোদনা বৃদ্ধি করে কৃষকের আগ্রহ সৃষ্টি করতে পারলে এবীজটি হতে পারে কৃষকের অর্থ উপার্জনের হাতিয়ার।