নাদিম হায়দার, ব্যুরো প্রধান মুন্সীগঞ্জঃ মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে পবিত্র কোরআন শরীফকে অবমাননা করায় শাহাজাদা নামে এক ব্যক্তিকে মিষ্টির দোকানে আসা ক্রেতারা আটক করে থানা পুলিশে দেয়। পরে তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করে মো.আব্দুল্লাহ আল মামুন। এরপর আটককৃত শাহাজাদাকে থানা হেফাজতে নিয়ে যায় পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৩ টার দিকে সিরাজদিখান বাজারের মা ক্ষীর মিষ্টান্ন ভান্ডার নামের এক দোকানে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মা ক্ষীর মিষ্টান্ন ভান্ডার দোকানে বসে শাহাজাদা পবিত্র কোরআন শরীফ কে অবমাননা করার দৃশ্য দেখলে থানায় পাশে দোকান হওয়ায় দোকানে আসা ক্রেতারা তাকে ধরে থানায় নিয়ে যায়। এসময় দোকান মালিক গোপি ঘোষ তার পীর বলে মানুষজনের সাথে বাকবিতন্ডা করে। তখন তিনি কোরআন শরীফ থেকে বেশি বুঝে সে অবমাননা করে নাই।

মা ক্ষীর মিষ্টান্ন ভান্ডারের মালিক গোপি ঘোষ বলেন, আমার পীরের জন্য আমি সব করতে পারি। তার জন্য আমি আমার ধর্ম, আমার পরিবার ত্যাগ করতে পারি। এমনকি গরুর মাংস খেতেও পারি। তিনি যখন কোরআন শরীফ অবমাননা করছে আমি দেখি নাই।

থানায় অভিযোগকারী মো.আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমি দোকানের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় দেখি আমাদের পবিত্র কোরআন শরীফ কে অবমাননা করছে এই শাহজাদা। তখন আমি দেখে দোকানে থাকা মানুষজন নিয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাই। আমি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি। শাহজাদা এটা ঠিক করেনি এবং যেহেতু আমাদের পবিত্র গ্রন্থ পবিত্র কোরআন সে ক্ষেত্রে এই অবমাননা করা মোটেও ঠিক হয়নি। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোড় দাবি জানাচ্ছি।

সিরাজদিখান থানার অফিসার ইনর্চাজ বোরহান উদ্দিন বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি, আর শাহাজাদা (৪০) নামে একজান আসামিকে আটক করে হাজতে রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার মামলা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।