সৈয়দ মিঠুন, ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ঘাটাইল থানায় আগতদের সেবায় ভিন্নমাত্রা যোগ হয়েছে। কিছুদিন আগেও এই থানায় পুলিশিং সেবা নিতে আসা সেবাগ্রহিতাদের মধ্যে পুলিশ সম্পর্কে খারাপ ধারণা থাকলেও গত এক মাস যাবৎ পাল্টেছে সেসব চিত্র। থানায় আগত নারী-পুরুষসহ শিশুদের জন্য রাখা হয়েছে চকলেট। থানায় সেবা নিতে আসা লোকজনকে সেবা প্রদানের পাশাপাশি আপ্যায়ন স্বরুপ বড়দেরকে চা-বিস্কুট আর শিশুদের একটি করে চকলেট দিচ্ছেন ঘাটাইল থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম। থানায় মামলা, অভিযোগ বা সাধারণ ডায়েরি করতে আসা সেবা গ্রহীতারা পাচ্ছেন এই চা, চকলেট ও বিস্কুট।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত (২৬) জুলাই ঘাটাইল থানার অফিসার ইনচার্জ আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম (ওসি) হিসাবে যোগদান করেন যোগদানের পর থেকেই তিনি সেবাগ্রহিতাদের উদ্বুদ্ধ করতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তিনি যোগদানের পর থেকে ঘাটাইলের অপরাধ চিত্র পাল্টেছে। পাল্টেছে থানার চিত্রও। তবে থানায় যোগদানের পর থেকেই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার কারণে কমেছে সকল অপরাধ প্রবণতা। ইতিমধ্যেই উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন এলাকাবাসীর সাথে বন্ধুত্ব তৈরি হয় ওয়ার্ড পর্যায়ে ঘুড়ে ঘুড়ে পুলিশ-জনতার ভাতৃত্ব বন্ধন সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন। যোগদান করার পর হতেই উপজেলার অপরাধের প্রবণতা কমে গেছে। সেই সাথে দালালমুক্ত থানায় পরিণত হয়েছে। ন্যায়-নীতি ও সততা জবাবদিহিতার মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন পুলিশ চাইলে সব পারে।তিনি ওই থানায় যোগদানের পর হতে পুলিশ এলাকার জনগণের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের সৃষ্টি হয়েছে। তার কর্মতৎপরতায় ইতিমধ্যে ঘাটাইল থানা এলাকার মাদক, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, বাল্যবিয়ে সহ মাদক ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন অপকর্ম ও অপরাধ মুক্ত এলাকায় পরিণত হয়েছে। মানবতার ফেরিওয়ালা নামে খ্যাত ওসি মোঃ আজহারুল ইসলাম সরকার (পিপিএম) তাঁর কর্মদক্ষতা, সততা, জবাবদিহিতা, স্বচ্ছতার মাধ্যমে পুলিশিং সেবায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। অতি অল্পদিনের মধ্যে তিনি একজন সফল ওসি হিসাবে ঘাটাইল থানা এলাকায় পরিচিতি লাভ করেছেন

থানায় সেবা নিতে আসা উপজেলা পৌর সদরের বাসিন্দা নাইম, থানায় একটি জিডি করতে এসেছিলেন তিনি। অফিসিয়াল কিছু কাগজপত্র হারানোর কারণে জিডি করতে এসেছিলেন থানায়। কিভাবে জিডি করবো বা কি করতে হবে বুঝতে না পেরে ওসি সাহেবের কাছে যান তিনি। মনে ভয় নিয়ে গেলেও ওসির ব্যবহারে তিনি আবেক আপ্লুত হয়ে যান। ওসি আজহারুল ইসলাম তাকে চা-বিস্কুট খাইয়ে বিনামুল্যে জিডি করিয়ে দেওয়ায় তিনি সত্যিই পুলিশিং সেবায় মুগ্ধ।