নিজস্ব প্রতিবেদক : হিযবুত তাহরীরের প্রধান সমন্বয়ক অধ্যাপক মহিউদ্দিনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে উত্তরা মডেল থানায় করা মামলার রায় ঘোষণার জন্য ১৩ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল। মামলার রায় ঘোষণার নির্ধারিত দিন ছিল বুধবার। রায় প্রস্তুত না হওয়ায় সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুজিবুর রহমান ১৩ জানুয়ারি রায় ঘোষণার জন্য নতুন দিন ধার্য করেন। এর আগে একই কারণে চার বার রায় ঘোষণা পেছানো হয়েছে। ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসলি জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জাহাঙ্গীর আলম জানান, মামলাটির রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন (বুধবার) ধার্য ছিল। কিন্তু রায় প্রস্তুত না হওয়ায় নতুন দিন নির্ধারণ করেন বিচারক।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১০ সালের ১৮ এপ্রিল উত্তরা থানাধীন ৩ নম্বর সেক্টরে তাকওয়া মসজিদের পশ্চিম পাশে হিজবুত তাহরীর বাংলাদেশের কিছু সদস্য সরকারবিরোধী লিফলেট ও পোস্টার বিলি এবং জনজীবনে আতঙ্ক সৃষ্টি করার জন্য পেট্রোল বোমা নিয়ে আসেন। এ খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামিদের গ্রেফতার করেন। তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা হয়। ২০১৩ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি ডিবি পুলিশের পরিদর্শক নুরুল আমীন হিযবুত তাহরীরের প্রধান সমন্বয়ক অধ্যাপক মহিউদ্দিনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত কামরুল হোসেন মোল্লা আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। মামলায় ১৬ সাক্ষীর মধ্যে বিভিন্ন সময়ে ৭ জন সাক্ষ্য প্রদান করেন।

মামলার আসামিরা হলেন- হিযবুত তাহরীরের প্রধান সমন্বয়ক অধ্যাপক মহিউদ্দিন, যুগ্ম সমন্বয়ক কাজী মোরশেদুল হক প্লাবন, হিযবুত তাহরীর সদস্য তানভীর আহম্মেদ, সাইদুর রহমান, আবু ইউসুফ আলী ও তৌহিদুল আলম।