নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ‘মান্থলি পেমেন্ট অর্ডার’ বা এমপিওভুক্তের আওতায় নতুন করে ১ হাজার ১২৮ শিক্ষক-কর্মচারীকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। দেশের নয়টি অঞ্চল থেকে আসা ১ হাজার ৪২০ টি আবেদনের মধ্যে যোগ্যদের এমপিওভুক্ত করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ মার্চ) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় তাদের এমপিও দেওয়া হয়েছে।

পদাধিকার বলে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক এ সভায় সভাপতিত্ব করেন। এছাড়াও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের তিনজন প্রতিনিধি, পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদফতরের একজন, মাউশি অধিদফতরের নয়টি আঞ্চলিক উপ-পরিচালকসহ ৩০ জনের বেশি কর্মকর্তা সভায় অংশ নিয়েছিলেন।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিফতরের পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক বেলাল হোসাইন বলেন, নিয়মিত এমপিও বৈঠকে মোট ১৪২০ টি আবেদন ছিল। এর মধ্যে যাচাই-বাচাই করে ১১২৮ জন শিক্ষক-কর্মচারীকে এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। যেসব আবেদনের অসঙ্গতি ছিল সেগুলো আরও অধিক যাচাই-বাচাই করে পরবর্তীতে এমপিও সভায় তোলা হবে।

উল্লেখ্য যে, নিয়ম অনুযায়ী প্রতি বিজোড় মাসে একবার এমপিও কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সে হিসেবে সোমবার (১৫ মার্চ) এ সভা ডাকা হয়। সভায় শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গত কয়েকমাসে যারা শূন্য পদের বিপরীতে বিধান অনুযায়ী নিয়োগ পেয়ে শিক্ষকতায় যোগ দিয়েছেন, তাদের এমপিওভুক্তির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।