নিউজ ডেস্ক : আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১১ ডিসেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণায় নামছেন। এদিন তিনি প্রথমেই টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে প্রচারণা শুরু করবেন।

 

আওয়ামী লীগ সভাপতি এরপর সিলেটে হযরত শাহজালাল (র.) ও হযরত শাহ পরাণের (র.) মাজার জিয়ারত করে সেখানে জনসভা করবেন। তারপর উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলা, কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চট্টগ্রামসহ আরও বেশ কয়েকটি জেলায় নির্বাচনী জনসভা করার পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর।

 

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাকে গণভবনে ডেকে নেন। দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের তিনি সফরসূচি চূড়ান্ত করতে নির্দেশনা দিয়েছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

 

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, আওয়ামী লীগ সভাপতি সন্ধ্যায় দলের মনোনয়নবঞ্চিত কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাকে ডেকে নেন। এদের মধ্যে ছিলেন- যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, বিএম মোজাম্মেল হক, কেন্দ্রীয় সদস্য এসএম কামাল হোসেন এবং আনোয়ার হোসেন। গণভবনে আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এবং আ খ ম জাহাঙ্গীরসহ আরও অনেকে।

 

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা জানিয়েছেন, দলের মনোনয়নবঞ্চিতদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তোমরা এখন থেকে নিয়মিত ধানমণ্ডির কার্যালয়ে বসবে। সারা দেশে প্রার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে। কোথাও সমস্যা হলে সেগুলো সমাধান করবে। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথমে টুঙ্গিপাড়া, পরবর্তীতে সিলেট, কুমিল্লাসহ বেশ কয়েকটি জেলায় নির্বাচনী প্রচানার তারিখ চূড়ান্ত করার নির্দেশ প্রদান করেন।