সাভার প্রতিনিধিঃ প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ২০২৬ সালের জুনে ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে এ প্রকল্পের জন্য লোনচুক্তি সম্পন্ন হবে। আমাদের ফান্ডিং এর কোন সমস্যা নেই। শুরুতেই হোচট খাওয়ার কোন কারণ নেই। বর্তমানে যেই রাস্তা আছে এইখানে ভোগান্তি যেন না হয়, রাস্তা যেভাবে আছে থাকুক। অনেক মানুষ বিকল্প পথ হিসেবে এই পথ ব্যবহার করে। এইখানে মানুষের যেন ভোগান্তি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমি ভোগান্তির বিষয় এড়িয়ে চলতে বলবো। রাস্তা যেন ব্যবহারের উপযোগী থাকে। ক্যায়োটিক পরিস্থিতি যেন সৃষ্টি না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

শনিবার(২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টার দিকে তুরাগ থানাধীন ধউর এলাকায় ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে (DAEEP) নির্মাণ প্রকল্পের স্ট্যাটিক লোড টেস্ট এর পাইলট পাইল বোরিং কাজের উদ্বোধনের সময় এসব কথা জানান তিনি।

এই প্রকল্পের সাথে জড়িত কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি পরিষ্কার বলে দিতে চাই, শতভাগ সচ্ছতার সাথে সকল প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শেষ করা হবে। এখানে কোন নয়ছয় করার সুযোগ নেই।

জানা গেছে, এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ১৬ হাজার ৯০১দশমিক ৩২ কোটি টাকা। যার মধ্যে বাংলাদেশ সরকার বহন করবে ৫ হাজার ৯৫১ দশমিক ৪২ কোটি টাকা এবং বিদেশী চীন সরকার (G2G) বহন করবে ১০ হাজার ৯৪৯ দশমিক ৯১ কোটি টাকা।

৪ লেন বিশিষ্ট এই এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের দৈর্ঘ্য হবে ২৪ কিমি। এয়ারপোর্ট-আব্দুল্লাহপুর-ধউর-বড় আশুলিয়া-জিরাবো-বাইপাইল হয়ে ঢাকা ইপিজেড পর্যন্ত হবে এর বিস্তৃতি। এর সঙ্গে র‍্যাম্প হবে ১০ দশমিক৮৪ কিমি, নবীনগরে ১ দশমিক ৯১৫ কিমি ফ্লাইওভার, ৪ লেনের ২ দশমিক ৭২ কিমির সেতু ও ১৮ কিমি ড্রেন। এই প্রকল্পের কাজ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইম্পোর্ট এন্ড এক্সপোর্ট করপোরেশন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন-ঢাকা আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের প্রকল্প পরিচালক মোঃ শাহাবুদ্দিন খান, আশুলিয়া থানা আওয়ামীলীগের আহবায়ক ফারুক হাসান তুহিনসহ আসলে আঞ্চলিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও ঠিকাদার ইমাম হোসেন ও প্রকল্পের কর্মকর্তারা।