মোহাম্মদ রাজিবুল হক রনি :

বঙ্গবন্ধুর সৈনিক আমার সর্বোত্তম প্রিয় বাবার সাথে আমি

শাহিনুজ্জামান শাহিন। এক নামে সকলেই যাঁকে চেনে-জানে। কোন বিশেষণের প্রয়োজন হয় না; অন্তত পাবনার জেলার ঐতিহ্যবাহী উপজেলা সুজানগরে। তিনি তাঁর প্রিয়ভূমি সুজানগরে মাটি ও মানুষের সঙ্গে রাজনীতি করছেন দীর্ঘ সময়। এলাকার মানবসেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখে আবালবৃদ্ধবণিতার প্রশংসা কুড়াচ্ছেন। তাইতো উপজেলাবাসী আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ্ওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তাদের চেয়ারম্যান পুত্র শাহিনকেই প্রার্থী হিসেবে চান।

নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ খালিদ মাহমুদ চোধুরীর সঙ্গে এক শুভক্ষণে।

কেন চান? এর উত্তর জানতে চাইলে এলাকাবাসী ঠিক এভাবেই বলেন।


উপজেলা নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত শাহিনুজ্জামান শাহিন

আ্ওয়ামী লীগের সর্বশেষ কেন্দ্রীয় কাউন্সিলে দেয়া প্রয়াত সর্বজন শ্রদ্ধেয় সৈয়দ আশরাফের মতোই তিনিও বলতে পারেন, ‘আমার রক্ত আ্ওয়ামী লীগের’। তাঁর বাবা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মরহুম আবুল কাশেম মাষ্টার। যিনি আজীবন আ্ওয়ামী লীগের জন্য লড়াই সংগ্রাম করেছেন।

সাগরকান্দি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেলকে সঙ্গে নিয়ে শাহীনুজ্জামান শাহীনের প্রচার-প্রচারণা।

সেই জনপ্রিয় সভাপতি, জনপ্রিয় উপজেলা চেয়ারম্যান ’কাশেম মাষ্টার’-এর কনিষ্ট পুত্র শাহিনুজ্জামান শাহিন।

উপজেলা নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত শাহিনুজ্জামান শাহিন

শাহিনুজ্জামান শাহিন সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য, ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক, সুজানগর পৌর শাখা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সুজানগর উপজেলা শাখা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সুজানগর পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, আবুল কাশেম নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, সুজানগর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সদস্য, চর-ভবানীপুর ফুরকানিয়া মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, আবু বকর সিদ্দীকিয়া খানকা শরীফের সভাপতি, চর-সুজানগর পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদের সভাপতি, শহীদ আমিনুল হক বাক্কু স্মৃতি সংসদের সভাপতি, সুজানগর বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, শহীদ স্মৃতি পাঠাগারে সাধারণ সম্পাদক ও সুজানগর প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা শাহিনুজ্জামান শাহিন আসন্ন সুজানগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী। উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ঘিরে ইতোমধ্যে তিনি নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ, নেতাকর্মীদের সাথে সাক্ষাত, কুশল বিনিময়, সভা-সমাবেশ, উঠান বৈঠক ও পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন দিয়ে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন। প্রতি নিয়ত সকাল থেকে রাত অবধি তিনি নির্বাচনী এলাকার নানা শ্রেণির পেশার মানুষের কাছে যাচ্ছেন, সমর্থন, দোয়া ও ভোট চাইতে।


উপজেলা নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত শাহিনুজ্জামান শাহিন

দৈনিক এই আমার দেশ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার মোহাম্মদ রাজিবুল হক রনির সঙ্গে একান্তে আলাপকালে শাহিনুজ্জামান শাহিন বলেন, আমার পিতা প্রয়াত আবুল কাশেম মাস্টার আওয়ামীলীগের একজন পরীক্ষিত নেতা ছিলেন, আমার পিতা এলাকার দলীয় নেতাকর্মীদের বিপদে সবসময় পাশে থেকেছেন, তিনি সুজানগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ১৯৭৪-২০০৪ খ্রী., সুজানগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান (দুই বার), সুজানগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ২০০৪-২০১৬ খ্রী. ১লা অক্টোবর, সুজানগর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ২০১৪-২০১৬ খ্রী. ১লা অক্টোবর পর্যন্ত দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। আমার পিতার মত আমিও নির্বাচনীও এলাকার দলীয় নেতাকর্মীদের বিপদে সবসময় পাশে থেকেছি, দলীয় নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করেছি, সার্বিক বিচারে দলের জন্য ত্যাগী, শ্রমদানকারী এবং দলীয় মমত্ববোধেই জননেত্রী, মানবতার মা, ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার, গণতন্ত্রের মানসকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সুজানগর উপজেলায় দলীয় মনোনয়ন দেবেন এটা আমি দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করি। তিনি আরো বলেন আমি দলীয় মনোনয়ন পেলে নির্বাচনীয় এলাকার মানুষ আমাকে ভালোবেসেই তাদের মূল্যবান ভোটে নৌকা প্রতীক কে জয়যুক্ত করবে। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে গ্রামকে শহর, দূর্নীতি, মাদক ও সন্ত্রাসের বিরোধে জিরো টলারেন্সে কাজ করবো এমন প্রতিশ্রুতি দেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিনুজ্জামান শাহিন।