ডেস্ক রিপোর্ট : পরীক্ষার হলে নকল ঠেকাতে পোশাক খুলে তল্লাশি চালানো হতে পারে-এই ভয়ে দশম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি ভারতের ছত্তিসগড়ের জশপুরের ওই ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ তার নিজের ঘরে পাওয়া যায়।

ভারতের গণমাধ্যম এই সময়ের প্রতিবেদনে বলা হয়, দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীর পরীক্ষার সিট পড়েছিল ভারতের জশপুরের পন্ধ্রপাঠ স্কুলে। ওই কেন্দ্রে পরীক্ষায় নকল আটকাতে খুব কড়াকড়ি নিয়ম চালু হয়। পরীক্ষা চলাকালীন নকল করার অভিযোগে ওই কেন্দ্রের দুই ছাত্রী ও এক ছাত্রকে হল থেকে বের করে আলাদা আলাদা কক্ষে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর নগ্ন করে তল্লাশি চালানো হয়। ছেলেটির কাছে নকল পাওয়া গেলে সঙ্গে সঙ্গেই তাকে বহিস্কার করা হয়। তবে ছাত্রীদের কাছ থেকে কিছু না পাওয়া গেলেও তারা অত্যন্ত অপমানিত হয়েছে বলে জানায়।

এ ঘটনার পর ওই দিনই বাড়ি ফিরে ১৬ বছরের ওই ছাত্রী তার ভাইকে জানায়, এমন ঘটনা তার সঙ্গে হলে সে আত্মহত্যা করবে। এর দুদিন পরই নিজের ঘরে ওড়নায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে ওই ছাত্রী। তবে এমন ঘটনার পর তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।