ক্রাইস্টচার্চে শুক্রবার দুই মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর বাতিল হয়ে গেছে বাংলাদশ-নিউজিল্যান্ড শেষ টেস্ট ম্যাচটি। এ অবস্থায় আজ রাতে দেশে ফিরছেন তামিম-মুশফিকরা।

এই হামলা থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট খেলোয়াররা। এ নিয়ে দিনভর উৎকণ্ঠায় ছিলো গোটা বাংলাদেশ। পরে তাদেরা নিরাপদে থাকার খবর পেয়ে স্বস্তি ফিরে এসেছে গোটা দেশে।

নিউজিল্যান্ড সময় শনিবার দুপুর ১২টায় ফ্লাইটে উঠেছে টাইগারদের ১৫ খেলোয়ার। বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ৪০ মিনিটে তারা ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ড সফরে দলের ম্যানেজারের দায়িত্বে থাকা খালেদ মাসুদ পাইলট।

১৫ ক্রিকেটারদের মধ্যে আছেন মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, লিটন দাস, তাইজুল ইসলাম, সাদমান ইসলাম, মুমিনুল হক, খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ ও সৌম্য সরকার।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার খবর আসার পর থেকেই উৎকণ্ঠায় ছিল গোটা বাংলাদেশ।কেননা টেস্টের ভেন্যু হ্যাগলি ওভালের পাশের যে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা, সেখানেই প্রথম হামলার ঘটনা ঘটে। সময়মতো সংবাদ সম্মেলন শেষ না হওয়ায় দেরি হওয়ায় তাদের মসজিদে পৌঁছতে একটু দেরি হয়। এই দেরিটুকুর জন্যই প্রাণে বেঁচে যান ক্রিকেটাররা। পরে সেখান থেকে তারা স্টেডিয়াম হয়ে নিরাপদে হোটেলে ফিরে যান।

কোচিং স্টাফসহ ১৯ জনের দল একসঙ্গে একই ফ্লাইটে দেশে ফিরবেন। তবে প্রধান কোচ স্টিভ রোডস, পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ ও ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়েন ফিরে যাবেন নিজ নিজ দেশে।

এদিকে মসজিদ হামলার পর ঢাকায় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘এখন থেকে বাংলাদেশ দল যে দেশ সফর করবে, তাদেরকে আগে আমাদের ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করতে বলা হবে। যারা নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেবে শুধু তাদের দেশেই দল পাঠানো হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডে এখন খেলার পরিস্থিতি নেই। তাই শেষ টেস্ট ম্যাচ বাতিল করা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজ চলাকালে বন্দুক হামলায় তিন বাংলাদেশিসহ মোট ৪৯ জন নিহত এবং আরো ৪৮ জন আহত হয়েছেন।