নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধামন্ত্রীর সঙ্গে গণভবনে দেখা করার পরদিনই ডাকসু ও হল সংসদের ১১ মার্চের নির্বাচন বাতিল করে আবারও পূনর্নির্বাচনের দাবি করেছেন নব-নির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নূর। দেখা করার সময় প্রধানমন্ত্রীর মাঝে মায়ের ছায়া খুজে পা্ওয়ার কথা্ও বলেন।

আজ রোববার বিকেলে মধুর ক্যান্টিনে সাধারণ ছাত্র পরিষদের আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন কথা বলেন তিনি।

এসময় ৫ দফা দাবি জানিয়ে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন ভিপি নুর। দাবিগুলো হলো- ভিসির পদত্যাগ, নির্বাচন বাতিল, পুন:তফসিল ঘোষণা, মামলা প্রত্যাহার ও হামলাকারীদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনা।

নির্বাচন বয়কট করা ৫ প্যানেলকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে জানিয়ে নবনির্বাচিত ভিপি বলেন, ১৮ মার্চ থেকে সকল একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। সেদিন সকাল ১১টায় রাজু ভাস্কর্য থেকে মিছিল নিয়ে ভিসি কার্যালয় অবরোধ করা হবে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ ছাত্র পরিষদের ডাকসু নির্বাচনের প্যানেলের জিএস প্রার্থী রাশেদ খান, এজিএস প্রার্থী ফারুকসহ সংগঠনের অন্য নেতারা।


এর আগে শনিবার দুপুর ২টা থেকেই প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রেণে সরকারি বাসভবন গণভবনে যান ডাকসু ও হল সংসদের নির্বাচিতরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১টি বাসে তারা গণভবনে পৌঁছান।

সবার শেষে বেলা ৩টার দিকে একটি প্রাইভেটকারে গণভবনে পৌঁছান ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর। সঙ্গে ছিলেন ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেনও।

গণভবনের গেটে পৌঁছেই ডাকসুর নবনির্বাচিত জিএস গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে কোলাকুলি করেন নুর। এরপর একে একে সাবই ভেতরে প্রবেশ করতে শুরু করেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর একজন বিশেষ সহকারী ফোনে আমন্ত্রণ জানান ডাকসু এবং হল সংসদে নির্বাচিতদের।

প্রসঙ্গত, ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ভিপি এবং সমাজসেবা সম্পাদক ছাড়া বাকি ২৩টি পদে জয়ী হয়েছে ছাত্রলীগ। ২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুলে তা বর্জন করেছে ছাত্রলীগ ছাড়া সবকটি প্যানেল। তারা পুনর্নির্বাচন দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আলটিমেটাম দিয়েছে।