ডেস্ক : বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌসকে নির্বাচনী প্রচারে নামিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস। নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে বিজেপি। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলে, এমনটা আগে কখনও দেখেনি। কাল হয়তো ইমরান খানকেও প্রচারে ডাকবে তৃণমূল।

উত্তর দিনাজপুরে মুসলিম ভোটার প্রায় ৫১ শতাংশ। রায়গঞ্জে এবার চতুর্মুখী লড়াইয়ে মুসলিম ভোট ফারাক গড়ে দিতে পারে বলে ধারণা রাজনৈতিক মহলের। সেই মুসলিম ভোটের লক্ষ্যেই বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌসকে প্রচারে নামায় তৃণমূল।

বিজেপির রাজ্য সভাপতির দিলীপ ঘোষের কথায়, ‘কীভাবে ভারতের একটি রাজনৈতিক দলের প্রচারে বিদেশি নাগরিক আসতে পারেন! আগে কখনও এমনটা দেখিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আইন-কানুন মানেন না। ভোটার কম পড়লে রোহিঙ্গাদের ডেকে আনছেন, আবার সিবিআইকে গ্রেফতার করছেন। কাল হয়তো ইমরান খানকেও প্রচারে ডাকবে তৃণমূল। তীব্র নিন্দা করছি’।

ফেরদৌসের প্রচারের ভিডিও নির্বাচন কমিশনে দাখিল করেছে বিজেপি। তাদের দাবি, নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে তৃণমূল। তৃণমূলের প্রার্থীপদ খারিজ করা হোক।

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দফায় ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম দফার ভোট রয়েছে যথাক্রমে ১৮ এপ্রিল, ২৩ এপ্রিল, ২৯ এপ্রিল, ৬ মে, ১২ মে ও ১৯ মে। এরপর ২৩ মে ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

পশ্চিমবঙ্গ থেকে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন, তৃণমূলের হয়ে অভিনেত্রী নুসরাত ও নায়ক দেব এবং বিজেপির হয়ে গায়ক বাবুল সুপ্রিও।