অস্ট্রেলিয়ার দুইবারের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক রিকি পন্টিং। বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। এবারো বিশ্বকাপে আছেন পন্টিং। অস্ট্রেলিয়া দলের সহকারী কোচের ভূমিকায় রয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি বিশ্বকাপের দলগুলোর ‘বিপজ্জনক’ খেলোয়াড় নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটের ধারাবাহিক আয়োজনে অংশ নিচ্ছেন পন্টিং। এ আয়োজনে বাংলাদেশের বিপজ্জনক ক্রিকেটার হিসেবে সাকিব আল হাসানকে বেছে নিয়েছেন সাবেক এই অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। বিশ্বকাপের অন্য দলগুলোকে সাকিব সম্পর্কে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশ দলে সাকিব নির্ভরতা এখন আগের মতো নেই। এই চলতি মাসে আয়ারল্যান্ডে নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবার ত্রিদেশীয় সিরিজের ট্রফি জিতেছে বাংলাদেশ সাকিবকে ছাড়াই। ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে মাশরাফির বাহিনী সময়ের সেরা ক্রিকেটারকে ছাড়াই।

যদিও ফাইনালের আগে ত্রিদেশীয় সিরিজের পারফরম্যান্সেই শীর্ষ অলরাউন্ডার হয়ে এবার বিশ্বকাপে যাচ্ছেন সাকিব। তাই পন্টিংয়ের চোখে বাংলাদেশের বড় অস্ত্র এই বাঁহাতি ক্রিকেটার। পন্টিং বলেছেন, ‘বাংলাদেশের হয়ে সাকিব বিপজ্জনক। সে অনেক দিন ধরেই খেলছে। মাঠের নানা প্রান্ত দিয়ে রান করতে পারে। স্কয়ারে খুব শক্তিশালী। এ ছাড়া ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট ও থার্ডম্যানেও ভালো খেলে।’

বল হাতে অন্যসব স্পিনারদের চেয়ে সাকিবকে আলাদাভাবে মূল্যায়ন করছেন পন্টিং। এই বাঁহাতি স্পিনারের উইকেট নেয়ার ক্ষমতা মনে ধরেছে তার। অস্ট্রেলিয়ান এই সাবেক ক্রিকেটার বলেছেন, ‘সাকিব কতটা চালাক তা বোঝা যায় হাতে বল থাকলে। বলে অতটা বাঁক নেই কিন্তু অসাধারণ গতি-বৈচিত্র্য। সব সময় আক্রমণাত্মক। অন্য স্পিনারদের চেয়ে আর্ম বল অনেক বেশি ব্যবহার করে। তবে এখন বাকি স্পিনারদের চেয়ে সে আলাদা। বেশিরভাগ স্পিনার রান আটকাতে চায়। কিন্তু সে (সাকিব) অন্যভাবে ভেবে থাকে। প্রথম কয়েকটি বলে সে আপনাকে ক্রিজে রাখবে। এরপর গতি-বৈচিত্র্য এনে অপেক্ষা করবে কখন ব্যাটসম্যান তাকে মারতে আসবে।’

প্রায় এক যুগ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে সাকিবের। এছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন টি-২০ লিগে খেলেছেন তিনি। পন্টিংয়ের মতে, বিশ্বকাপে এই অভিজ্ঞতাও সাকিবকে সাহায্য করবে। এছাড়া তামিমও বাংলাদেশের হয়ে ভালো করবেন আশা করছেন পন্টিং। তিনি বলেছেন, ‘সাকিব অনেক দিন ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে। আইপিএল ও বিগ ব্যাশেও খেলছে অনেক দিন ধরে। তার অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে বাংলাদেশ দলের জন্য। সে ও তামিম ইকবাল বিশ্বকাপে ভালো করতে পারে বলে মনে করি।’