অনলাইন ডেস্ক : পাশের গ্রামের এক তরুণের সঙ্গে প্রেম করতেন নবম শ্রেণির এক ছাত্রী। সেই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি তার বাবা ধীরেন মণ্ডল ও মা সুমতি মণ্ডল। এ কারণে মেয়েকে হত্যা করে গঙ্গা নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার অভিযোগে তার বাবা-মাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মেয়েকে হত্যার অভিযোগে গতকাল শনিবার পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলারে মহেন্দ্রতলা গ্রামের নিজের বাড়ি থেকে ধীরেন মণ্ডল ও সুমতি মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তার ‍দুজনের বরাত দিয়ে ‍পুলিশ জানায়, পাশের গ্রামের বাসিন্দা অচিন্ত্য মন্ডলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল ওই কিশোরীর। কিন্তু তাদের দুজনের এই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি কিশোরীর বাবা-মা। তাই গত শুক্রবার পরিবারের সম্মান রক্ষার্থে মেয়েকে হত্যা করেন ধীরেন মণ্ডল ও সুমতি মণ্ডল।

পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, অভিযুক্ত দম্পতি নবম শ্রেণির এই ছাত্রীকে প্রথমে খুন করেন, তারপর তার মরদেহ একটি ব্যাগে ভরেন। পরে সেই ব্যাগটি গঙ্গায় ফেলে দেন তারা।

এ ঘটনায় একটি মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মালদা জেলার পুলিশ সুপার আলোক রাজোরিয়া। তিনি বলেন, নদী থেকে কিশোরীর লাশটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।