প্রতিনিধি, চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা গোপিনাথপুরে চকলেটের লোভ দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি আব্দুল মালেককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সদর থানার পুলিশের একটি বিশেষ দল অভিযান চালিয়ে। শুক্রবার দিবাগত রাতে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নুয়ালি গ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার আব্দুল মালেককে গতকাল রাতেই ঝিকরগাছা থেকে চুয়াডাঙ্গায় নিয়ে আসা হয়েছে। সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) লুৎফুল কবীর অভিযানে নেতৃত্ব দেন। উপপরিদর্শক ভবতোষ রায়সহ অন্য পুলিশ সদস্যরা তাঁকে সহযোগিতা করেন। আজ শনিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হতে পারে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার পদ্মবিলা ইউনিয়নের গোপিনাথপুরে গ্রামে গত বুধবার দুপুরে চকলেট দেওয়ার লোভ দেখিয়ে ছয় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া যায়। একই গ্রামের আব্দুল মালেক (৫৫) শিশুটিকে ধর্ষণ করে ও একাধিকবার নির্যাতন চালায় বলে জানায় শিশুটি। মানসম্মানের ভয়ে পরিবারের সদস্যরা ওই দিন বিষয়টি কাউকে জানায়নি। বৃহস্পতিবার শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে রাতেই তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই রাতে আব্দুল মালেককে আসামি করে সদর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করা হয়। মামলার পর থেকে সদর থানা ও জেলা পুলিশের একাধিক দল এজাহারভুক্ত আসামিকে ধরতে অভিযান চালায় এবং গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে আব্দুল মালেককে গ্রেপ্তার করে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।