নিজস্ব প্রতিবেদক : সাত দেহরক্ষী এবং বিপুল পরিমাণ টাকাসহ আটক জি কে শামীম যুবলীগের কেউ নয় বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী।

তিনি জানান, জি কে শামীম যুবলীগের কেউ নন। তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি।

যুবলীগ চেয়ারম্যান আরো বলেন, যুবলীগের কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানের নিকেতনে শামীমের জি কে বি কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেডের অফিসে অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযান চলাকালে জব্দ করা হয় বিপুল পরিমাণ টাকা, গুলি ও মাদক। এছাড়া অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব সূত্র জানায়, শামীমের অফিসের ভেতর থেকে নগদ এক কোটি ৮০ লাখ টাকা, ১৬৫ কোটি টাকার এফডিআর (স্থায়ী আমানত) চেক ও ১শ কোটি টাকার চেক উদ্ধার করা হয়। এর মধ্যে ১৪০ কোটি টাকার এফডিআর তার মায়ের নামে, বাকি ২৫ কোটি টাকা তার নামে। এছাড়া মার্কিন ডলারও উদ্ধার করা হয়।

আটক শামীম নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার সন্মানদী ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত মো. আফসার উদ্দিন মাস্টারের ছেলে। আফসার উদ্দিন মাস্টার ছিলেন হরিহরদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

জানা গেছে, শামীম এক সময় ছিলেন বিএনপির ঢাকা মহানগর যুবদলের সহ-সম্পাদক। পরে দল বদলে যোগ দেন যুবলীগে।

যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ বাবলু বলছেন, যুবলীগে শামীমের কোনো পদ নেই। তিনি নিজেই নিজেকে সমবায় বিষয়ক সম্পাদক বলে বেড়ান।