মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কুঃ পার্বত্য বান্দবানেরনাইক্ষ্যংছড়ি  উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মোবাইল ও প্রযুক্তির অপব্যবহার বিষয়ক সেমিনারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি বলেছেন,মোবাইল ও প্রযুক্তির ব্যবহার প্রতিটি মানুষে করে থাকেন নিজেদের উন্নতি ও ভালোর জন্যে। কিন্ত অনেকে এটিকে মন্দকাজে ব্যবহার করছে।ধর্মে-কর্মে-সম্মাানে আঘাত করছে। যাতে করে  সমাজ কলুষিত হচ্ছে ।  এ জন্যে প্রযুক্তির অপব্যবহার বিষয়ে সকলকে সজাগ থাকতে হবে। গতকাল ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে অনুষ্টিত সেমিনারে প্রধান অথিতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।তিনি আরো বলেন, আজকের শিশুরা আগামী দিনের কর্ণধার। এ ক্ষুদে অভিভাবকরা আজ মোবাইল,ইর্ন্টানেট ও ফেসবুককে অপব্যবহার করে নানা ক্রাইমে জড়িয়ে পড়ছে। হতাশ হচ্ছেন সবাই। অচেতন অভিভাবক,পরিবেশ ও বন্ধ-ুবান্ধবদের পাল্লায় পড়ে এ সব হচ্ছে। আজ সময় এসেছে এ সব বিষয়ে সচেতন হওয়ার। এমন যদি হয়, তবে শিশু শির্ক্ষাথীরা মানুষ হবে। তারা দেশের সেরা নাগরিক হবে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার সোহেল মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্টিত এ সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মাঈনুদ্দিন খালেদ,নাইক্ষ্যংছড়ি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক রহমত সালাম,নাইক্ষ্যংছড়ি ছালেহ আহমদ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক সাইদুর রহমান ও মানস মহাজন প্রমূখ। এর আগে একাডেমিক সুপারভাইজার সোহেল মিয়ার তত্বাবধানে উপজেলার বাচাইকৃত ৪টি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্টানের বিজ্ঞানের  মেধাবী শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিজ্ঞান ভিত্তিক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্টিত হয়। এতে প্রথম স্থান অধিকার করেন নাইক্ষ্যংছড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। দ্বিতীয় হন মদিনাতুল উলুম মাদরাসা,তৃতীয় হন ছালেহ আহমদ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় আর চর্তুথ স্থান পান চাকঢালা জুনিয়র হাই স্কুল। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার ও সনদপত্র তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি।