ঢাকা: চলছে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। মিরপুরের বিভিন্ন কেন্দ্রে সকাল থেকেই ভোটারদের দীর্ঘলাইন দেখা গেছে। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে ভোটাররা নির্ধারিত সময়ের আগেই ভোটকেন্দ্রে ভিড় করেছেন। এবার প্রথমবারের মতো বিভক্ত ঢাকার দুই সিটিতে একযোগে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হচ্ছে। আর এটিই ইভিএমে সবচেয়ে বড় নির্বাচন।

শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর মিরপুরের ১৩, ১৪ ও ১৬ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র।

দেখা যায়, সকালে ১৩, ১৪ ও ১৬ নং ওয়ার্ডের হাজী আশ্রাফ আলী হাই স্কুল, ইব্রাহিমপুর সালাউদ্দিন শিক্ষালয়, কাজীপাড়ার হাজী ইউসুফ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সেনপাড়ার মিরপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, শেওড়াপাড়া নর্থ-সাউথ কিন্ডারগার্ডেন, স্কলার কিন্ডারগার্ডেন, তালতলা হালিম ফাউন্ডেশন উচ্চ বিদ্যালয়, গ্লোরি স্কুল ও পীরেরবাগের আলিম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ভোটারদের দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে।

ভোটাররা বাংলানিউজকে জানান, পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতেই সময়ের আগেই লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। ভোট দিয়ে আগে আগে বাড়ি ফিরতে চাই বলেও তারা জানান।

এ ব্যাপারে নর্থ সাউথ স্কুলে ভোট দিতে আসা মনোয়ার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, সকালে এসেছি ভোট দিতে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিব। আমি ভোট দিয়ে গেলে বাসার অন্যরা ভোট দিতে আসবেন। ভোটের পরিবেশ দেখে যাচ্ছি যাতে করে সকলে এসে ভোট দিতে পারে।

স্কলার কিন্ডারগার্টেনে ভোট দিতে এসেছেন নাহিদা বেগম তিনি বাংলানিউজকে বলেন ভোট হচ্ছে নাগরিক অধিকার বাড়ির পাশেই কেন্দ্র তাই সকাল সকাল ভোট দিতে এসেছি বলে তিনি জানান।

এদিকে ১৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি বিল্লাল হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, সকালে সব দলের এজেন্ট কেন্দ্রে এসেছে আশা করছি এই ওয়ার্ডে ভোট সুষ্ঠু হবে।
শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলবে ভোট।

ঢাকা উত্তর সিটিতে এক হাজার ৩১৮টি ভোটকেন্দ্রের সাত হাজার ৮৫০টি বুথে ৩০ লাখ নয় হাজার ভোটার এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে এক হাজার ১৫০ ভোটকেন্দ্রের ছয় হাজার ৫৮৯টি বুথে ২৪ লাখ ৫২ হাজার ভোটার রয়েছেন।

এবারের নির্বাচনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট দিয়ে পছন্দের প্রার্থী নির্বাচনের সুযোগ পাচ্ছেন ভোটাররা।