স্পোর্টস ডেস্ক
উৎসবের মঞ্চ তৈরি ছিল। পূর্ণ পয়েন্ট পেলেই জার্মান বুন্ডেসলিগার শিরোপা ধরে রাখা নিশ্চিত। উপলক্ষটা রাঙাতে ভুল করেননি মৌসুম জুড়ে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা রবার্ট লেভানডভস্কি। তার লক্ষ্যভেদের কল্যাণে টানা অষ্টমবারের মতো লিগ চ্যাম্পিয়ন হলো বায়ার্ন মিউনিখ।

মঙ্গলবার রাতে ভের্দার ব্রেমেনকে তাদের মাঠেই ১-০ গোলে হারিয়েছে কোচ হ্যান্সি ফ্লিকের দল। ম্যাচের প্রথমার্ধে দুপক্ষের মধ্যে ব্যবধান গড়ে দেন নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে বায়ার্ন শিবিরে ফেরা পোল্যান্ডের স্ট্রাইকার লেভানডভস্কি। করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলে জার্মানিতে ফের ফুটবল চালু হওয়ার পর সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এটি বাভারিয়ানদের টানা অষ্টম জয়।

দুই ম্যাচ হাতে রেখেই বুন্ডেসলিগায় ৩০তম শিরোপার স্বাদ নিয়েছে জার্মানির সফলতম ক্লাবটি। তবে দর্শকবিহীন মাঠে খেলা হওয়ায় বায়ার্নের উদযাপন হয়নি বরাবরের মতো। ​৩২ ম্যাচে ২৪ জয়, ৪ ড্র ও ৪ হারে তাদের অর্জন ৭৬ পয়েন্ট। এক ম্যাচ কম খেলে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড।

বল দখল ও আক্রমণে আধিপত্য দেখানো বায়ার্ন জয়সূচক গোলটি পায় ম্যাচের ৪৩তম মিনিটে। ব্রেমেনের রক্ষণভাগের উপর দিয়ে উঁচু করে জার্মান ডিফেন্ডার জেরোম বোয়াটেংয়ের বাড়ানো বল বুক দিয়ে নামান লেভানডভস্কি। এরপর তা মাটি ছোঁয়ার আগেই ডান পায়ের কোনাকুনি শটে আগুয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি।

চলমান ২০১৯-২০ মৌসুমের লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় শীর্ষে থাকা লেভানডভস্কির এটি ৩১তম গোল। সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৪০ ম্যাচে তার গোলসংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৬টি। ৫৫তম মিনিটে স্বাগতিকদের জালে আরও একবার বল জড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়।

৭৯তম মিনিটে দশ জনের দলে পরিণত হয় বায়ার্ন। ব্রেমেনের সার্বিয়ান ডিফেন্ডার মিলোস ভেলিকোভিচকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন লেফট ব্যাক আলফোনসো ডেভিস।

ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের শেষদিকে অতিথিদের শিরোপা নিশ্চিত করার পরিকল্পনা প্রায় ভেস্তে যেতে বসেছিল। তবে বায়ার্নের জার্মান গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ার কোনো বিপদ ঘটতে দেননি। জাপানের ফরোয়ার্ড ইউয়া ওসাকোর হেড ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন তিনি।