ডেস্ক নিউজঃ হঠাৎ করেই ভারতে পানি প্রবাহ আটকে দিয়েছে ভুটান। এতে আসামের সীমান্তবর্তী এলকার ২৫টি গ্রামের হাজার হাজার চাষী পানি সংকটে পড়েছেন। অঞ্চলটিতে চাষাবাদের ক্ষেত্রে ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সম্প্রতি এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়েছে বিক্ষোভ করেছেন আসামের সীমান্ত লাগোয়া চাষীরা।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা মহামারীর কারণে ভুটান তাদের সীমান্ত সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিয়েছে। সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় কোনো নাগরিককে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। দেশটি বলছে, ভারতীয় চাষীদের ভুটানের উদ্ভূত সেচ চ্যানেল ব্যবহার করতে দেয়া হবে না।

আসামের বাকসা জেলা দিয়ে প্রবাহিত চ্যানেলের মাধ্যমে ভারতীয় কৃষকরা চাষের জন্য পানি পেতেন। কৃত্রিমভাবে তৈরি করা হয়েছিল ওই সেচ চ্যানেল। স্থানীয় ভাষায় যাকে বলা হয় ডং। আসামের বাকসা জেলার অন্তর্গত ২৫টি গ্রামের কয়েক হাজার কৃষক ওই চ্যানেলের পানির ওপর নির্ভরশীল।

ভুটান সরকারের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষতির মুখে পড়েছে ওইসব এলাকায় বাস করা কৃষকরা। তারা এমন ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সড়কে নেমেছেন।

খবরে বলা হয়েছে, বাকসা জেলার প্রশাসন ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে বিষয়টি নিয়ে আবেদন করেছে। কালিপুর, বোগাজুলি ও কালানদী অঞ্চলের ডং বাঁধ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা সমিতির ব্যানারে জেলার কৃষকরা নিজেদের ক্ষোভ ও দাবির কথা তুলে ধরেছে।