দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, দিনাজপুরের বিরল রেলবন্দরকে দেশের এক নম্বর রেলবন্দর হিসেবে রূপান্তর করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে সরকার। উত্তরাঞ্চলকে কেউ আর এখন মঙ্গা এলাকা বলবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। ভারত থেকে আনা মালামাল খালাসের জন্য বিরল রেলবন্দরে অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে। এখানে মেইন রেল লাইনের পাশে আরও তিন/চারটি রেল লাইন নির্মাণের কাজ করা হচ্ছে। রেলমন্ত্রী আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা আমাদের যোগ্য নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারই হাত ধরে আমরা অনেক এগিয়ে গেছি। পুরো বিশ্ব ভয়াবহ করোনা ভাইরাসের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। তিনি আরো বলেন,   একসময় বাংলাদেশে খাদ্যের অভাব ছিল। কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭৫ লাখ মেট্রিকটন চাহিদার বিপরীতে বর্তমানে খাদ্য উৎপাদন হয়েছে ৩ কোটি ৯৯ লাখ মেট্রিক টন। ২৪ লাখ মেট্রিকটন খাদ্য বাংলাদেশে উদ্বৃত্ত আছে। রেলমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবাইকে নির্দেশ দিয়েছেন, দেশের এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদী না থাকে। বিএনপির আমলে রেলকে সংকুচিত করে দেওয়া হয়েছিল। ২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে রেলকে আলাদা মন্ত্রণালয় করে দিয়েছেন।

সোমবার (০৬ জুলাই) দুপুরে দিনাজপুরের বিরল উপজেলার পাকুড়া রেল বন্দরের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য পরিদর্শন শেষে এক সুধী সমাবেশে তিনি এসব কথা  বলেন। বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বিরল পৌরসভার মেয়র সবুজার সিদ্দিক সাগরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরল তথা দিনাজপুরবাসীকে এই রেলবন্দর উপহার দিয়েছেন। এ বন্দর দিয়ে ভবিষ্যতে ভারতে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করতে পারবে। ভবিষ্যতে এ বন্দর দিয়ে নেপালেও মালামাল পরিবহন করা হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন,   জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার (এসপি) আনোয়ার হোসেনসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী প্রমুখ।