আল মামুন-হোসেনপুর প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে বড়দের জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে নূরে আনিতা আজাদ (৬) নামে এক শিশু নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে। এছাড়া নাইমা সুলতানা বীথি (১০) নামে আরেক শিশু গুরুতর আহত হয়েছে। তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রোববার (৫ জুলাই) সকালে উপজেলার সাহেদল ইউনিয়নের গলাচিপা গ্রামে পৈশাচিক এই নৃশংস ঘটনাটি ঘটে।নিহত নূরে আনিতা আজাদ বীরপাইকশা গ্রামের মো. আলমগীরের মেয়ে এবং গুরুতর আহত নাইমা সুলতানা বীথি গলাচিপা গ্রামের উসমান মিয়ার মেয়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গলাচিপা গ্রামের সিরাজুল ইসলামের সাথে প্রতিবেশী নূরুল ইসলামের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে রোববার (৫ জুলাই) সকালে গলাচিপা বাজারে দুই পক্ষের মধ্যে সালিশ-দরবার অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো।
এ রকম পরিস্থিতিতে রোববার (৫ জুলাই) সকাল ৮টার দিকে পার্শ্ববর্তী বীরপাইকশা গ্রাম থেকে শিশু সন্তান নূরে আনিতা আজাদকে সাথে নিয়ে বাবার বাড়ি গলাচিপা গ্রামে যান গলাচিপা বাজারের ফার্মেসী ব্যবসায়ী মো. আলমগীরের স্ত্রী শাপলা আক্তার। বাবার বাড়িতে পৌঁছে শাপলা আক্তার দেখতে পান, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে।
সংঘর্ষের এক পর্যায়ে দুই অবুঝ শিশু নূরে আনিতা আজাদ ও নাইমা সুলতানা বীথি হামলার শিকার হয়। তাদেরকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক আনিতাকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া গুরুতর আহত বীথিকে উন্নত চিকিৎসার ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে হোসেনপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সোনাহর আলীর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

এ ব্যাপারে হোসেনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি। তদন্ত করে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।