ফিরোজ সুলতান, ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁও পৌর এলাকার তিন চাকা বিশিষ্ট যানবাহন ও মালবাহী গাড়ি লোড আনলোড ইজারাদারদের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৭ জুলাই) ঠাকুরগাঁও পুরাতন বাসস্টান্ড এলাকার জেলা ইজি বাইক মালিক ও শ্রমিক অস্থায়ী কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মালবাহী গাড়ি লোড আনলোড ইজারাদার ইন্দ্রজিত গুহ ঠাকুরতা ও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিন চাকা বিশিষ্ট যানবাহন ইজারাদার আবু বক্কর সিদ্দিক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ট্রাক টেংকলরী কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুজ্জামান, সাধারন সম্পাদক জাকারিয়া প্রামানিক ও ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাব সভাপতি মনসুর আলী। সংবাদ সম্মেলনে জেলার কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে ইজারাদাররা বলেন, ঠাকুরগাঁও পৌরসভার অনুমতিক্রমে ও কেবলমাত্র  নির্দেশিত নিদৃষ্ট পয়েন্ট গুলিতেই বৈধভাবে পৌরসভা এলাকায় টোল আদয় করা হচ্ছে। অথচ কিছু সংবাদ মাধ্যমে টোল আদায়কে চাঁদাবাজি হিসেবে আখ্যা দিয়ে সংবাদ প্রকাশিত করেছে যা পুরোটাই ভিত্তিহীন। বৈধভাবে ঠাকুরগাঁও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ইজারা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে পৌরসভা এলাকায় টোল আদায়ের জন্য দরপত্র আহবান করে। এর প্রেক্ষিতেই সর্বোচ্চ দরদাতা নির্বাচিত ব্যাক্তিরা পৌরসভা এলাকায় টোল আদায় করছেন। 

এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও পৌর মেয়র মির্জা ফয়সল আমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান,  ইজারা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে ও টোল আদায়ের জন্য দরপত্র আহবান করে পৌর এলাকায় ৭ টি পয়েন্টে তিন চাকা বিশিষ্ট যানবাহনের টোল আদায় এবং ৪ টি পয়েন্টে মালবাহী গাড়ি লোড আনলোড টোল আদায় পয়েন্ট হিসেবে টেন্ডার দেওয়া হয়েছে । এ প্রক্রিয়া পুরোটাই বৈধপথে করা হয়েছে। এসব পয়েন্টের বাহিরে যদি কেউ টোল আদায় করে থাকে এর জন্যে পৌর কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।