কয়রা প্রতিনিধিঃ খুলনার কয়রায় উপজেলার সন্নিকটে উত্তর মদিনাবাদ ফুলতলা গ্রামে গভীররাতে একটি বসতবাড়িতে  হামলা চালিয়ে ভাংচুর লুটপাট মারপিট সিমানার  পাকা স্থাপনা ঘর সহ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে দূর্বৃত্তরা।     এসময় দূর্বৃত্তদের এলোপাতাড়ি দাঁয়ের  কোপে একই পরিবারের গর্ভবতী মহিলা সহ  ৬ জন জখম হয়েছে। আহতরা হলেন বাড়ির মালিক মামুন গাজী (৩৮) তার স্ত্রী দুই সন্তানের জননী শিল্পী খাতুন ছোট দুই  ভাই মাসুম গাজী (৩৫) তার স্ত্রী পাপিয়া (২৬) আর এক ভাই ওমর ফারুক (২৮) তার স্ত্রী মাসুরা খাতুন (২৫)কে গুরুতর আহত করে এর মধ্যে মামুন স্ত্রী শিল্পী ও মাসুম কে তাৎক্ষণিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়েছে । এরমধ্যে মামুন গাজীর অবস্থা আশংকা  জনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে  বলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের   জরুরী বিভাগের মেডিকেল এসিট্যান্ট দীলিপ কুমার নিশ্চিত করেছেন।           
গ্রামবাসী ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানাযায়, শনিবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে একই গ্রামের আইনজীবি গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি দল মামুন গাজীর বসত বাড়িতে হামলা চালিয়ে বসত ঘরের দরজা ভেঙ্গে বাড়ি মালিক মামুন গাজীকে এলোপাতাড়ি   কোপাতে থাকে এসময় তার চিৎকারে বাড়ির অনান্য লোকজন তাকে উদ্ধারেে এগিয়ে এলে দূর্বৃত্তরা তাদেরকেও বেধড়ক মারপিট করে। হামলা কারিরা বসতবাড়ির তিনটা ঘরে থাকা নগত টাকা ও লক্ষাধীক টাকা মূল্যের স্বর্ণালংকার  লুটেনেয়।  
এব্যাপারে জানতে চাইলে আইনজীবী গোলাম মোস্তফা ঘটনাটি অস্বীকার করে বলেন তারা গভীররাতে আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে আমার স্ত্রী আছিয়া খাতুনকে আহত করেছে। সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।                                              কয়রা থানার ওসি মোঃ রবিউল হোসেন বলেন, ঘটনাটি মৌখিক শুনেছি  কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।