এস এম মারুফ, ক্রাইম রিপোর্টারঃ যশোরের নওয়াপাড়ায় পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে নতুন জামা কিনে না দেয়ায় সামিয়া নামে এক স্কুলছাত্রী গলাই ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বুধবার সকালে পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের সরখোলা গ্রামের পূর্ব পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সামিয়া খাতুন (১৩) সে সরখোলা গ্রামের পূর্ব পাড়ার কৃষক তারেক সরদারের ছোট মেয়ে, ও সরখোলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী ছিল।

সামিয়ার মামা শহিদুল ইসলাম জানান, আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে বুধবার সকালে সামিয়া তার বাবা-মায়ের কাছে নতুন জামা-কাপড় কিনে দিতে বায়না ধরে। কিন্তু সামিয়ার পিতা দুই দিন পরে নতুন জামা কিনে দিতে চাইলে সে অভিমান করে ঘরে চলে যায়। সকাল আনুমানিক ৮ টার সময় তাঁর কোন সাঁড়া না পেয়ে ওই ঘরের দরজা ভাঙ্গা হয়। এসময় ঘরের ডাবার সাথে গলাই ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুলন্ত সামিয়াকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম আত্মহত্যার ঘটনার কথা স্বীকার করে বলেন, স্কুলছাত্রী সামিয়া খাতুন আত্মহত্যার ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।