রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি   ঃ  মহিপুর
প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলামের নামে একটি আঞ্চলিক দৈনিক মতবাদ
পত্রিকায় প্রকাশিত মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার প্রতিবাদে
মহিপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকেলে মহিপুর
প্রেসক্লাবের হলরুমে সকল সদস্যদের উপস্থিতি তে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে
নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

এসময মহিপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম বলেন আমার উন্নযন মূলক কাজ
এবং জনপ্রিযতায় ঈষান্বিত হয়ে সাংবাদিকদের ভুল তথ্য দিয়ে  একটি কুচক্রী
মহল আমার সন্মান ক্ষুন্ন করার জন্য এমন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ
করিয়েছে। এসময তিনি আরো বলেন গত ৭ ই মার্চ ২০১৫ তারিখ আমার গাড়িতে গাজা
রেখে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হয়েছিল,  গত পহেলা মার্চ ২০২০ তারিখ আমার
উপরে হামলা চালানো হয়েছিল। আমি জনস্বার্থে সংবাদ প্রকাশ করি এর
প্রেক্ষিতে আমাকে বিভিন্ন সময বিভিন্ন মহলের রোশানলে পড়তে হয়েছে বা এখনো
হচ্ছে। তারপরও আমি দমে যাইনি।

শনিবার ২৫ জুলাই বরিশাল থেকে প্রকাশিত দৈনিক মতবাদ পত্রিকায স্টাফ
রিপোর্টারের বরাদ দিয়ে ” সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি পুলিশ ” শিরোনামে একটি
সংবাদ প্রকাশিত হয়। যেখানে কোন সত্যতা এবং কারো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ বা
বক্তব্য ছাড়াই বালা হয় মহিপুর প্রেসক্লাব একটি মিনি থানা এবং মহিপুর
প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম মহিপুরের মাদক সিন্ডিকেট পরিচালনা,
চাদাবাজি, মাসোয়ারা আদায়, ভূমিদস্যুতা, টাকার বিনিময ধর্ষনের ঘটনা
ধামাচাপা প্রদান এবং সালিশ বানিজ্য পরিচালনা করে থাকে। যা সম্পূর্ণ
মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন। প্রকাশিত সংবাদে আরো বলা হয়েছে চাদাবাজি, শালিশ
বানিজ্য করে আমার সংসার চলে হয়তো যেই সাংবাদিক ভাই নিউজটা করেছে সে
জানেনা আমার নিজের মাছের আড়ৎ এবং ট্রলারে ব্যাবসা রয়েছে ও পৈতৃক সূত্রে
যে সম্পত্তি আমি পেয়েছি তা আমার নতুন প্রজন্ম কোন কাজ না করে বসে খেয়ে
যেতে পারবে। তাই আমি এমন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদের তীব্র নিন্দা ও
প্রতিবাদ জানাই।

দৈনিক মতবাদ পত্রিকার মহিপুর থানা প্রতিনিধি ও মহিপুর প্রেসক্লাবের সদস্য
মনির হাওলাদার বলেন আমি দৈনিক মতবাদের এখানকার প্রতিনিধি এবং মহিপুর
প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক  এ ধরনের কোন কাজে জাড়িত থাকতো
তাহলে তা আমি জানতাম। এই নিউজটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

সংবাদে উল্লেখিত রাখাইন তরুনীর মা কালাচাঁন পাড়া গ্রামের লামু বলেন,
মহিপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাসির স্যার আমার আপন ভাইয়ের মত সে
বিভিন্ন সময়ে আমাকে বিভিন্ন ভাবে সাহায্য,  সহযোগিতা করে থাকে। সংবাদে
উল্লেখ করা হয়েছে সে আমাদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছে যা সম্পূর্ণ
মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। সে আরো আমার মেয়ের দূর্ঘটনায বিষয নানা ধরনের
সহযোগিতা করেছেন এবং পুলিশকে ও আসামি ধরতে তাগিদ দিয়েছেন। আমি এই সংবাদের
তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

মহিপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন বলেন, আমরা সাংবাদিকরা
সমাজের দর্পণ হিসেবে কাজ করি। যে সাংবাদিক ভাইয়েরা এমন সর্বৈব মিথ্যা ও
ভিত্তিহীন সংবাদটি প্রকাশ করেছেন সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে তাদেরকে বলবো
আপনাদের আরো একটু ভালোভাবে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে সংবাদ পরিবেশন করা
উচিৎ ছিলো। আমরা মহিপুর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে এ ধরনের ভুয়া নিউজের
তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।