আল মামুন -হোসেনপুর  কিশোরগন্জ -প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে করোনা চিকিৎসার নামে রিয়া আক্তার (১১) নামে এক শিশু ও মফিজ উদ্দিন (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে অ্যাম্বুলেন্সযোগে অপহরণ করে নিয়ে যায় একটি অপহরণকারী চক্র। পরে অভিযান চালিয়ে ভিকটিমদের উদ্ধারসহ ৪ জনকে আটক করে পুলিশ।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) রাতে হোসেনপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সোনাহর আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের কাজী পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহরণ চক্রের ৪ সদস্যকে আটক করে।

আটককৃতরা হচ্ছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার পূর্বমেড্ডা গ্রামের মৃত জুলহাস ভূইয়ার ছেলে সাহেদ ভূইয়া (৪২), খালধার পাড়া গ্রামের বাছির মিয়ার ছেলে রাজন মিয়া (৩৫), শিমরাইল গ্রামের মৃত শুকুর আলীর ছেলে আরিফ মাহমুদ (৩৫) ও কাজীপাড়া মৌলভীহাটি গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে বশির আহমেদ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) দিবাগত রাতে হোসেনপুর পৌর এলাকার আড়াইবাড়িয়া গ্রামের দ্বীন ইসলামের মেয়ে রিয়া আক্তার এবং একই বাড়ির মৃত আবদুল মতিনের ছেলে মফিজ উদ্দিনকে অপহরণ চক্রের সদস্যরা ডাক্তার পরিচয়ে স্বাস্থ্য সুরক্ষা পোশাক পড়ে বাড়ি থেকে তাদেরকে অ্যাম্বুলেন্সে তুলে নিয়ে যায়।অজ্ঞাত স্থান থেকে অপহরণকারীরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ভিকটিমের পরিবারের কাছে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। ভিকটিমের পরিবারের সদস্যরা হোসেনপুর থানাকে এ ব্যাপারে অবহিত করলে পরক্ষণই পুলিশ উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। পরে মোবাইল ফোন নাম্বারের সূত্র ধরে উদ্ধার অভিযানে নামে পুলিশ।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) রাতে হোসেনপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সোনাহর আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের কাজী পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহরণ চক্রের ৪ সদস্যকে আটক করে।

এসময় ভিকটিম রিয়া আক্তার এবং চাচা মফিজ উদ্দিনকে উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ অপহরণ চক্রের কাছ থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্স, একটি মোটর সাইকেল, একটি পিস্তল, দুইটি চাকু ও একটি বেলচা জব্দ করে।

হোসেনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, অপহরণের ঘটনায় ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।