যশোরের বেনাপোল সীমান্তে মাদক বিরোধী পৃথক দুটি অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ৭৩ বোতল বাংলা মদ ও ৮ বোতল ফেন্সিডিলসহ পাঁচ মাদক ব্যবসায়ী আটক করেছে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ ও ৪৯ বিজিবি সদস্যরা। আটককৃত আসামী- বেনাপোল পোর্ট থানাধীন ধান্যখোল গ্রামের ফরমান হোসেনের ছেলে মোঃ রফিকুল ইসলাম (২২), তপুর আলীর ছেলে মোহাম্মদ আলী (২৬), কালু মিয়ার ছেলে লিয়াকত আলী (৩০), নজরুল ইসলামের ছেলে মনিরুল ইসলাম (৩০) ও পোর্ট থানাধীন দৌলতপুর গ্রামের উত্তরপাড়ার আমজাদ হোসেন এর ছেলে সাব্বির হোসেন (২১)।

জানা যায়, শনিবার (২২ আগস্ট) রাতে ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের ধান্যখোলা ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার শহিদুল ইসলাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেয়ে ধান্যখোলা মাঠের মধ্যে অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ৭৩ বোতল বাংলা মদসহ রফিকুল ইসলামকে আটক করে। তবে এসময় বিজিবি’র উপস্থিতি টের পেয়ে তার সাথে থাকা তিন সহযোগী পালিয়ে যায়। আরও জানা যায়, আটক আসামী রফিকুল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাথে থাকা সহযোগীদের নাম প্রকাশ করলে তাকে সহ পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মাদক মামলা করে জব্দকৃত মদসহ আসামীকে হস্থান্তর করা হয়ে। এছাড়াও একই রাতে বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই মাসুম বিল্লাহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেয়ে বেনাপোল পোর্ট থানাধীন দৌলতপুর গ্রামের উত্তরপাড়ায় অভিযান চালিয়ে ৮ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ সাব্বির নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা করেন।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান জানান, বিজিবি’র দেওয়া মামলার পলাতক আসামীদের আটক করতে রাতেই এসআই রোকনুজ্জামান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে পলাতক তিন আসামী মোহাম্মদ আলী, লিয়াকত হোসেন ও মনিরুলকে আটক করে। এছাড়াও পোর্ট থানা পুলিশের অভিযানে ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ আটক সাব্বির নামে এক আসামকেও একই সাথে যশোর বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।