কাজী ওহিদ,গোপালগঞ্জ ঃ যাত্রীবেশে বাস ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে একটি নৈশকোচ তল্লাশি করে দেশীয় অস্ত্রসহ আন্ত:জেলা ডাকাত দলের ৭ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। গতকা ২৪ আগষ্ট সোমবার আনুমানিক রাত পৌনে ১টার দিকে উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ভাটিয়াপাড়া গোল চত্ত্বর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ধারালো চাপাতি, চাকু, মোবাইল ফোন, সীমসহ ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত বেশ কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা হলো- খুলনা জেলার খানজাহান আলী থানার গিলাতলা এলাকার হাসমত আলী শিদকারের ছেলে বাবুল শিকদার (৪০), একই এলাকার আমজাদ শেখের ছেলে ফরহাদ শেখ (২৫), একই জেলার লবনচরা থানার রুপসা মোল্যাপাড়া এলাকার ফজলুল তালুকদারের ছেলে জিহাদ তালুকদার (২৫), রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার মকিমপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে শরিফুল ইসলাম (৩৫), বাগেরহাট জেলার মোড়েলগঞ্জ উপজেলার পুটিখালী গ্রামের মৃত আলী আক্কাস শেখের ছেলে কালাম শেখ (২৮), তাঁর ভাই ইলিয়াস শেখ (২৬) এবং গাজীপুর জেলার টঙ্গী থানার এরশাদনগর বস্তির নবীন হোসেনের ছেলে রায়হান (২০)। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় কাশিয়ানী থানায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন কাশিয়ানী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আজিজুর রহমান। ইনচার্জ আরো জানান, খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ইমাদ পরিবহনে একটি নৈশকোচে খুলনা থেকে টিকিট কেটে একটি ডাকাত দল বাসে উঠে। ডাকাত দলের সদস্যরা যাত্রীবেশে বাসে ডাকাতি করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এমন গোপন সংবাদ পেয়ে কাশিয়ানী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আজিজুর রহমান ও ফরিদপুরের ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি মো. আতাউর রহমানের যৌথ নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ভাটিয়াপাড়া গোল চত্ত্বর এলাকায় অবস্থান নেয়। ইমাদ পরিবহনের ওই বাসটি ভাটিয়াপাড়া গোল চত্ত্বর এলাকায় পৌঁছালে বাস থামানোর জন্য পুলিশ চালককে সংকেত দিলে চালক বাসটি থামায়। এ সময় ওই বাসে তল্লাশি চালিয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সাত সদস্যকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় কাশিয়ানী থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। আটকৃতদের মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের ওই কর্মকর্তা।