সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃসুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় পটেটোর লোভ দেখিয়ে জহিরুল নামের এক ৩ সন্তানের জনক কর্তৃক ৮ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ওই ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে কোরবানী ঈদের পূর্বে তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বাদাঘাট ইউনিয়নের সীমান্ত সংলগ্ন পুরান লাউড় গ্রামে। ধর্ষণের শিকার শিশু উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের পুরান লাউড় গ্রামের মৃত তুতা মিয়ার মেয়ে। অভিযুক্ত জহিরুল মিয়া (৩৫) একই গ্রামের হাসেন আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) রাতে তাহিরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পর বুধবার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার গামাই তলা থেকে জহিরুলকে আটক করে পুলিশ।

শিশুটির পরিবার ও তাহিরপুর থানা ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়,অভিযুক্ত জহিরুলের বাড়ি শিশুটির বাড়ির পাশেই। অভিযুক্ত জহিরুলের স্ত্রী প্রবাসী ২ ছেলে এক মেয়ে রয়েছে। উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের পুরান লাউড় গ্রামের মৃত তুতা মিয়ার ২ মেয়ে ২ ছেলের মধ্যে ধর্ষনের শিকার শিশুটি সবার ছোট। ধর্ষিতা শিশুটির মা স্বামী না থাকায় অন্যের বাড়িতে ও যাদুকাটা নদীতে কাজ কাম করে কোনরকম ২ মেয়ে ও ২ ছেলে নিয়ে সংসার চালায়। ওই শিশুটির মা প্রতিদিন সকালে যাদুকাটা নদীতে কাজ করতে চলে গেলে বাড়ি ফাঁকা থাকায় সুবাদে ৩ সন্তানের জনক ধর্ষক জহিরুল গত কোরবানী ঈদের আগে পটেটো, সিংঙ্গারাসহ বিভিন্ন খাবারের লোভ দেখিয়ে ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে কৌশলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ২ বার এবং এর আগে একবার ধর্ষন করে জহিরুল। সম্প্রতি এক সপ্তাহ আগে থেকে শিশুটি তার শরীলে ও গোপনাঙ্গে ব্যাথা বিভিন্ন যন্ত্রণা অনুভব হলে শিশুটি ওই গ্রামের তার খেলার সাথীদের বিষয়টি বললে পরে এ কথাগুলো শিশুর মায়ের কছে বলে। পরে গত ১৬ই আগস্ট শিশুটির কাছে তার মা জনতে চাইলে শিশুটি তার মাকে জনায় ওই বাড়ির জহির বেডা ঘেরে নিয়া পটেটোর খাইয়ে ৩ বার শারীরিক সম্পর্ক করেছে। আর এই এইডা কাউকে বলতে না করছে। বললে তাকে মেরে ফেলবে তাকে আর পটেটো আর সিঙ্গারা দিবে না। তাই ভয়ে ধর্ষিতা শিশুটি কাউকে কিছু না বলে এতদিন এসব কথা গোপন রাখে। শিশুটির মা এসব জানার পর পরিবারের লোকজনকে জনানালে বিষয়টি এলাকার বিচার শালিসি ব্যক্তিবর্গকে জানায়। পরে গ্রামের একটি পক্ষ বিচার সালিশে সমাধানের জন্য ধর্ষিতা শিশুটি মাকে চাপ দেয় । কিন্তু শিশুর মা শালিসি সমাধান না মেনে অইনের মাধ্যমে সটিক বিচারের স্বার্থে গত ২৫ আগষ্ট রাতে বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। পরদিন বুধবার বিকালে অভিযান চালিয়ে পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার গামাবি তলা এলাকা থেকে ধর্ষক জহিরুলকে গ্রেফতার করে তাহিরপুর থানা পুলিশ।

তাহিরপুর থানার ওসি আতিকুর রহমান এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শিশুটির মা বাদী হয়ে শিশু ধর্ষনরে ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এবং অভিযুক্ত জহিরুলকে আটক করা হয়েছে।