কয়রা,খুলনা, প্রতিনিধিঃ  খুলনার কয়রা উপজেলার বেদকাশির বিভিন্ন এলাকায় সম্প্রতি সময়ে ঘূর্নিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিমের মাধ্যমে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ প্রদান করা হয়েছে।  ২৯ আগষ্ট শনিবার ন্যাশনাল ডায়াবেটিস ফাউন্ডেশন,মানব কল্যাণ ইউনিট ও কয়রা ডায়বেটিস সেন্টারের যৌথ  উদ্যোগে আজ কয়রার বেদকাশিতে বিভিন্ন এলাকায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে এই ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিমের মাধ্যমে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। দিনব্যাপী প্রায় ২৫০ জন রোগীদের এই সেবা প্রদান হলো। 
মেডিকেল টিমের বিষয়ে জানতে চাইলে ন্যাশনাল ডায়াবেটিস ফাউন্ডেশনের সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ মোহাঃ শেখ শহীদ উল্লাহ বলেন অত্র এলাকার মানুষ আজ দ্বিমুখী সংকটের মুখোমুখি। প্রথমত করোনায় কর্মহীন মানুষ দারিদ্র্যতার সাথে যুদ্ধ করে টিকে থাকার চেষ্টা তার সাথে যুক্ত হলো ঘূর্নিঝড়ে বিধস্ত ক্ষত বিক্ষত জনজীবন। এই উভয় সংকটের মাঝে এলাকার মানুষের মধ্যে পানিবাহিত রোগীর সংখ্যা বাড়তে পারে।  এমতাবস্থায় আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। এই সংকটময় মুহুর্তে মানুষকে সেবা দিতে পেরে আমরা নিজেদের ধন্য মনে করছি।

এ প্রসংগে মানবকল্যান ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক জাহানে আলম উজ্জ্বল বলেন ঘুর্নিঝড় আম্পানে অত্র এলাকার মানুষ খুবই ক্ষতিগ্রস্থ ও নানান রোগে আক্রান্ত আর তারা দারুন ভাবে স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত। তাই আমরা চেষ্টা করেছি কয়রা ডায়বেটিস সেন্টার ও ন্যাশনাল ডায়বেটিস ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় তাদের পাশে দাঁড়াতে আর কিছু টা হলে ও স্বাস্থ্য সেবা দিতে।আর আমার মনে হয় এতে এলাকার মানুষ কিছুটা হলে ও উপকৃত হয়েছে।মানব কল্যান ইউনিটের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য কয়রা ডায়বেটিস সেন্টার,ন্যাশনাল ডায়বেটিস ফাউন্ডেশন ও ডা.সুজিত কুমার বৈদ্য কে ধন্যবাদ।
কয়রা ডায়বেটিস সেন্টারের উদ্যোক্তা ডাঃ সুজিত কুমার বৈদ্য বলেন আমার এলাকার মানুষ করোনা ভাইরাস,আম্পান সহ নানান প্রাকৃতিক দুর্যোগে প্রতিনিয়ত কষ্ট পাচ্ছে।কয়রা ডায়বেটিস সেন্টার,মানব কল্যান ইউনিট ও ন্যাশনাল ডায়বেটিক ফাউন্ডেশনের মত সমাজ সেবা মুলক প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করে এবং এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা সেবায় অবদান রাখতে পেরে আমি গর্বিত।
উক্ত মেডিকেল  ক্যাম্পে আরো উপস্থিত ছিল মো.মেহেদী হাসান,ডি.এম ইখতিয়ার উদ্দিন হিরো,মো.আলোমগীর হোসেন,কবিরুল আলম,রেজওয়ানুল হক,আসিফ আব্দুল্লাহ,প্রসেনজিত কুমার রায়,সুশান্ত কুমার বৈদ্য,প্রকাশ বৈদ্য সহ আরো অনেক সমাজ সেবক।