স্টাফ রিপোর্টারঃ সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় ছোনগাছা ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী ভাটপিয়ারী জঃরাঃসাঃ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের পাঠশালায় না থাকায় নীরবস্তব্ধ প্রতিষ্ঠানটি।অপরদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি প্রথম তলা থেকে দিতীয় তলা পর্যন্ত সরকারি উন্নয়ন কাজ চলমান থাকলেও দেখার কেউ নেই। করোনার অজুহাতে প্রতিষ্ঠানটি অভিবাবকহীন হয়ে পড়েছে।সরকারি নির্দেশনায় করোনা চলাকালীন সময়ে পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু শিক্ষকদের নিয়মিত স্কুলে উপস্থিত থেকে অফিসের কার্যক্রম চালু রাখার কথা বললেও উক্ত প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক মোঃ মোনায়েম খানের অনুপস্থিতির কারণে ভাটপিয়াড়ী জঃরাঃসাঃ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠটি জলাসয় ভূমির রুপ নিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, করোনার ৭ মাসে প্রধান শিক্ষক মোঃ মোনায়েম খান ৭ দিনের একদিন স্কুলে এসে হাজিরা দিয়ে যান।করোনার সাতমাসে প্রতিষ্ঠানের প্রতি শিক্ষকদের কোন মাথাব্যথা নেই। মুল্যবান ২১টি নতুন কম্পিউটার সেন্টার খোলা হয়েছে সে কম্পিউটার গুলো যত্নের অভাবে অকেজো হওয়ার মত।চলতি বছরে প্রথম দিকে ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে।এখনো কমিটি গঠন করে স্কুল পরিচালনার বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন না প্রধান শিক্ষক। অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সদস্য মোঃ আবুল হোসেন ও মোঃ আব্দুল সামাদ জানান, প্রধান শিক্ষক স্কুলে আগমনের দৃশ্য দেখা যায়নি। তিনি একজন দূর্নীতিবাজ অদক্ষ একজন প্রধান শিক্ষক।ইতিপূর্বেও প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম, দূর্নীতি,বিশ্বস্ত ভঙ্গের দায়ে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরবর্তীতে প্রায় তিন মাসপর উক্ত প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি সদস্যদের সাথে আলোচনা করে আর কোন দিন ভুল করবোনা বলে সাময়িক বরখাস্ত প্রত্যাহার করান,প্রত্যাহারের পরেই আবারো ব্যাপোরোয়া হয়ে উঠেছেন প্রধান শিক্ষক মোঃ মোনায়েম খান।  স্কুলে শিক্ষকদের পদচারনা না থাকায় প্রতিষ্ঠানটি অভিভাবকহীন জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন মূলক কাজে তদারকি করার কেউ নেই। এতে ঠিকাদার তার ইচ্ছেমত নিম্নমানের কাজকরে পার পাচ্ছেন।প্রধান শিক্ষক মোঃ মোনায়েম খান মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে বলেন অফিসে কাজ থাকলে আমি যাই না থাকলে যাইনা এতে আপনাদের মাথাব্যথা কিসের এটা অফিস দেখবে। সাংবাদিকরা লিখে আমার কিছুই করতে পারেননা অফিস ম্যানেজ আছে। এ বিষয়ে সদর উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এলিজা সুলতানা মুঠোফোনে বলেন  গত দুমাস পূর্ব থেক শিক্ষক কর্মচারীদের অফিস করা বাধ্যতামূলক, ভাটপিয়ারী জঃরাঃসাঃ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক কর্মচারীদের অনুপস্থিত  তদন্ত পূর্বক ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।