মোঃ তাজুল ইসলাম প্রধান:-শরৎ ঋতু এনেছে বাড়ীর আঙ্গিনায় শিউলী,বিলে শাপলা, পদ্ম,নদীর ধরের কাশফুল ও নিল আকাশে ভেসে বেড়ানো একদল সাদা মেঘ।।
বর্ষা শেষে যখন বৃষ্টির মাত্রাটা একটু কমে আসে, আকাশে ঘন কালো মেঘের বদলে তুলোর মতো সাদা মেঘদল ঘুরে বেড়ায়, ঝক ঝক আকাশের উজ্জ্বল আলো ছড়িয়ে পড়ে চারপাশে, তখন আমরা বুঝতে পারি শরৎ এসেছে।এ সময়ে শিশির স্নাত উজ্জ্বল শারদ প্রভাতে ঝরা শেফালীর মদির সূবাসে আকাশ বাতাস ভরপুর।বাংলাদেশ ছয় ঋতুর দেশ আষাড় শ্রাবণের বর্ষা শেষে ভাদ্র আশ্বিনে আকাশ ছোয়া তালগাছের পাকা তাল,নদীর ধারের সাদা কাশফুল ও বাড়ীর আঙ্গিনার শিউলি ও ডাগর আখের রসের স্বাদ নিয়ে এসেছে।শরৎ,ভাদ্রের মাঝামাঝি শরতের এ মধ্য প্রান্তে সাদা কাশ ফুল, শিউলি ফুল ও নীল আকাশের সাদা মেঘের ভেলায় প্রকৃতি যেন সেজেছে সাদা রঙ্গে।প্রকৃতির পালা বদলের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের মনও বদলে যেতে থাকে। বর্ষার বৃষ্টিমুখর অনুজ্জ্বল দিনের পর শরতের মেঘের মতো আমাদের মনও যেনো হালকা হয়ে যায়। শরতের দিন গুলোকে স্বপ্নের মতোই মনে হয়। চারপাশে অনেক স্বপ্ন ছড়িয়ে আছে।এ শরতেই আমরা শিউলি ফুলের মালা গেঁথে প্রিয়জনের জন্য পথ চেয়ে থাকি এবং সেই প্রিয়জনকে নিয়ে ঘর বাঁধার স্বপ্ন দেখি।শরতের আকাশে, শরতের নদীতে, শরতের ফুল সবকিছুই কেমন মায়াময়। শরতের এই শুভ্র রূপ পবিত্রতার প্রতীক। বিলের শাপলা, নদী তীরের কাশ ফুল, আঙিনার শিউলী, এরা সবাই কোমল পবিত্র। দেখলেই মন ভালো হয়ে যায়।যখন শিশিরের শব্দের মতো টুপ টাপ শিউলী ঝরে তখন আমরা শরতের গন্ধ পাই।এ সময়ে কাশবনে দলবেঁধে আসে চড়ুই পাখিরা।আমাদের অন্যান্য ঋতুগুলো অনেক ফুলের জন্য বিখ্যাত হলেও মাত্র কয়েকটি ফুল নিযেই শরৎ গরবিনী। কাশ-শিউলীর শোভা উপভোগ করতে হলে আমাদের শরতের কাছেই যেতে হবে। শরৎ মানেই একধরনের ভালো লাগা, এই সুখ বা আনন্দ একেবারেই আমাদের নিজস্ব।তাইতো গাইবান্ধায় শরতের শুভ্রতা সৌন্দর্যের অনুকরণ প্রিয় নর নারী যুবক যুবতীরা ছুটে চলতে দেখা গেছে গাইবান্ধার বিভিন্ন চরা লগুলোর কাশবনে।বিকেল বেলার নদীর ধারের কাশবন ও নদীতে মাঝি-মোল্লার নৌকায় বাড়ী ফেরা, ফুটন্ত কাশবাগানের উপর নীল আকাশে সাদা মেঘের ছোটাছুটির অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে।
এরইমধ্যে এ সকল নর নারীদের প্রিয় স্থানে পরিণত হয়ে উঠেছে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার করতোয়া নদীর তীরবর্তী রাখালবুরুজ ইউনিয়নের কাজলা গ্রাম ,সাপমারা ইউনিয়নের তরফকামাল গ্রামের কাশবন।এ বন রাখালবুরুজ ইউনিয়নের শেষ প্রান্তে বড়দহ ব্রীজের নিকটবর্তী হওয়ায় খুব সহজেই কাশফুলের স্নিগ্ধ শুভ্রতা নিতে ছুটে যাচ্ছে প্রকৃতির সৌন্দর্য প্রেমীরা।
আজ ৩০ ভাদ্র(১৪সেপ্টেম্বর) শরৎ মাঝামাঝি অবস্থান করছে। ভাদ্রের পর আশ্বিন শেষ হলে শরতেরও শেষ হবে শরৎ তার সঙ্গী সাদা কাশফুল ও শিউলি ফুলকে নিয়ে বিদায় নেবে,আসবে হেমন্ত।