ডেস্ক নিউজঃ চলতি মাসের ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ১ অক্টোবর বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার টানা সাক্ষ্যগ্রহণের শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সব আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি (মৃত্যুদণ্ড) চেয়েছেন আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ। এসময় তিনি আবরার হত্যা মামলায় ২৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করায় আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেছেন।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই সড়কের নিজ বাড়িতে আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বলেন, ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান ২৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন। আমরা আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি মামলার সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণের মাধ্যমে বিচারকাজ শেষ হবে। প্রত্যেক আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড যেন নিশ্চিত হয়। যেন মামলা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে সহযোগিতা করেন।

তবে তিনি আশঙ্কার কথাও বলেছেন। তিনি বলেন, সাক্ষীদের অনেকে আছে যারা বুয়েটের ছাত্র। তাদের বাড়ি দূর-দূরান্তে। তারা হাজির হবে কিনা। তাদের অনেক বন্ধুবান্ধব আছে যারা রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মী। আসামি পক্ষের লোকজন তাদের চাপ দিতে পারে। এ জন্য রাষ্ট্র ও পুলিশ প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

উল্লেখ্য, গেল বছরের ৬ অক্টোবর রাতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) এর শেরেবাংলা হল থেকে তড়িৎ ও ইলেকট্রনিকস প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ মামলায় গত বছরের ১৩ নভেম্বর বুয়েটের ২৫ ছাত্রের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। পুলিশের দেয়া অভিযোগপত্র গত ২১ জানুয়ারি আমলে নেন ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালত। মামলার ২৫ আসামির মধ্যে কারাগারে আছেন ২২ জন, পলাতক আছেন তিন আসামি।