এস এম মারুফ, বেনাপোল থেকেঃফরাসি পত্রিকা শার্লি এবদো কর্তৃক প্রকাশিত মহানবী হজরত মোহাম্মদকে (সা:) নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন ফরাসি সরকারের মাধ্যমে প্রদর্শনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে শার্শার গোগা ইউনিয়ন ও কায়বা ইউনিয়নবাসীর ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের উদ্দ্যেগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হয়েছে। এসময়  বিপুল সংখ্যক ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা অংশ নেয়।

উক্ত বিক্ষোভ মিছিলটি আঃ আলীম এর সঞ্চালনায় মুসল্লীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন, গোগা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আঃ রসিদ ও এলাকার ওলামাকেরামগন।  
সোমবার (২ নভেম্বর) আসরের নামাজ শেষে গোগা বাজার থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে এক বিক্ষোভ সমাবেশে মিলিত হয়। এ বিক্ষোভ মিছিলটি গোগা বাজার হয়ে গোগা ইউনিয়ন দারুচ্ছালাম হাফিজীয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা মাঠ প্রসঙ্গে এসে সমবত হন। এসময় মহানবী (সঃ) এর ভালোবাসার স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা।


গোগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আঃ রসিদ বলেন, আমরা গভীর ক্ষোভ ও উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, ফরাসি ঘৃণিত পত্রিকা শার্লি এবদো কর্তৃক প্রকাশিত বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ আদর্শ মহাপুরুষ মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা:) নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন ফরাসি সরকার পুলিশ প্রহরায় অট্টালিকার দেয়ালে টাঙিয়ে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করেছে। এমন ঘটনা প্রতিরোধে মুসলিম উম্মাহর উচিৎ ঐক্যবদ্ধভাবে জোরালো প্রতিবাদ করা। একই সাথে মুসলিম উম্মাহকে ফরাসি পণ্য বর্জনের আহ্বান জানান।
তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে যারা নবী করিম (সঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করবে তাদেরকে কোন প্রকার ছাড় নয়। বরং আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে ইতি মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ষোষণা করেছেন। তাই এখনো সময় আছে সাবধান হয়ে যাও।

এসময় উপস্থিত ওলামাকেরামরা বলেন, একবিংশ শতাব্দীতে কোনো সভ্য জাতি, দেশ বা সরকার কারো মৌলিক বিশ্বাসের ওপর এভাবে আঘাত হানতে পারে না। শুধু মুসলমান নয় বরং বিশ্বের শান্তিকামী দেশের মানুষের কাছ থেকে ধিক্কার ও ঘৃণা কুড়িয়েছিল ফ্রান্স। এর আগেও ২০১৫ সালে এ পত্রিকাটি রাসূলকে (সা:) নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশ করেছিল। এ নীতিহীন অপকর্মের ফলে বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতার সৃষ্টি হয়েছিল যাতে বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল।

এবার শার্লি এবদোর সাথে সাথে ফরাসি সরকারের এই কাণ্ডজ্ঞানহীন আচরণ শান্তিকামী বিশ্ববাসীকে হতবাক করেছে। এই নিন্দনীয় কাজ প্রতিটি মুসলমানসহ বিশ্বের প্রতিটি বিবেকবান মানুষের হৃদয়ে আঘাত করেছে।

এসময় নেতৃবৃন্দরা বলেন, মুসলিমরা শান্তিতে বিশ্বাসী। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, মুসলিমদের জীবনের চেয়েও প্রিয় মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা:) অবমাননা করলে আমরা চুপ থাকব, বরং সুশৃঙ্খল পন্থায় এর প্রতিবাদ জানানো প্রতিটি মুসলমানেরই ঈমানের দাবি। 
পরিশেষে হাফেজ আঃ মজিদ এর মোনাজাতের মাধ্যমে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষ হয়।