নদী ড্রেজিংয়ের স্থায়ী পরিকল্পনা তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, নদীর প্রবাহ যাতে ঠিক থাকে তাই বড় নদীগুলোতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং এবং মেইনটেনেন্স ড্রেজিং করতে হবে। যাতে সারাবছর পানি প্রবাহ ঠিক থাকে।মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এ নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরো বলেন, ‘নদীগুলোতে ডুবো চর থাকলে সেগুলো মাথায় রেখে ড্রেজিং করতে হবে। তাছাড়া বর্ষাকালে যাতে নদীগুলোতে পানি ধরে রেখে শুস্ক মৌসুমে ব্যবহার করা যায় তার ব্যবস্থা নিতে হবে।’

একনেক বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পরিকল্পনা বিভাগের সিনিয়র সচিব আসাদুল ইসলাম। রাজধানীর এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সম্পর্কে জনগণকে সচেতন থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। সবাই যাতে মাস্ক ব্যবহার করে সেটি নিশ্চিত করার কথাও বলেছেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য জাকির হোসেন আকন্দ জানান, বর্তমানে প্রকল্পভিত্তিক নদী ড্রেজিং কার্যক্রম চলছে। সেটি থেকে বেরিয়ে এসে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ে যেতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু দেশে ড্রেজার সংকট রয়েছে। এজন্য আমরা বড় প্রকল্প হাতে নিচ্ছি। যার মাধ্যমে ৩২টি ড্রেজার কেনা যাবে। বর্তমানে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাত্র ৬টি ড্রেজার রয়েছে। এজন্য আগে বড় নদীগুলোতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং করা হবে বলেও জানান তিনি।