খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার পর মরদেহ গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের নীলকন্ঠপুর গ্রামে। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেছে।
নিহত ওই যুবকের নাম আবির হোসেন বাবু (২৮)। সে নীলকন্ঠপুর গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে।
স্থানীয়রা জানান, নীলকন্ঠপুর গ্রামের আবির হোসেন বাবুকে পরিকল্পিতভাবে সোমবার রাতের কোন এক সময় পিটিয়ে হাত ও পায়ের নখ উপড়ে ফেলে নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। হত্যার পর তারা তার বসত বাড়ীর ১‘শ গজ দুরে পুকুর পাড়ে একটি গাছের ডালে ওড়না পেঁচিয়ে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখে। মঙ্গলবার ভোরে প্রতিবেশীর নিহতের মরদেহ ঝুলতে দেখে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে তারা সরেজমিনে গিয়ে বিষয়টি থানা পুলিশকে জানান। এরপর সকাল ৯ টার দিকে কালিগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তার মরদেহ উদ্ধার করেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রিয়াজ উদ্দীন জানান, বাবুকে পুর্ব পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি এ সময় তদন্ত পূর্বক হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানান।
কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হুসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, নিহতের গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, ইতিমধ্যে হত্যার রহস্য উন্মোচনে পুলিশ মাঠে নেমেছে। হত্যাকারী যেই হোকনা কেন তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।