সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ সাতক্ষীরায় টিসিবির পন্য সাধারন মানুষের মাঝে যা দেয়ার কথা তা না দিয়ে আতœসাৎ করে বাজারে উচ্চ মুল্যে বিক্রির অভিযোগে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ডিলার সিরাজুল ইসলামকে আটক করেছে। বুধবার সকালে সকালে শহরের আব্দুর রাজ্জাক পার্কে পন্য দেয়ার সময় তাকে আটক করা হয়। এ সময় অভিযানে নেতৃত্ব দেন সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মির্জা সালাহউদ্দিন।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, তার বিরুদ্ধে টিসিবি পন্য নিয়ে নয় ছয়ের অভিযোগ বহুদিনের। শহরের শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে রাত থেকে সকাল পর্যন্ত গরীব থেকে মধ্যবিত্ত মানুষ তীর্থের কাকের মত দাঁড়িয়ে থাকে পন্য ক্রয়ের জন্য। অথচ ঘন্টার পর ঘন্টা দাড়িয়ে রোদে পুড়ে অপেক্ষা করে অবশেষে ফিরে যায় খালি হাতে। অল্প কিছু লোককে মালামাল দিয়েই শেষ হয়ে গেছে বলে জানিয়ে দেন ডিলার। এই ভোগান্তির অবসান ঘটাতে টিসিবি ডিলার আয়ুব এন্টারপ্রাইজের স্বত্তাধিকারী সিরাজুল ইসলামকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশ। সাধারণ মানুষের মাঝে যে পরিমান টিসিবি পন্য বিক্রির কথা তিনি তা না দিয়ে তার প্রায় অর্ধেকের বেশী আতœসাৎ করে তিনি দীর্ঘদিন ধরে বাজারে উচ্চ মুল্যে বিক্রি করে আসছিলেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভুগীরা।

বরাদ্দ পত্র অনুযায়ী আজ তালিকায় চিনির পরিমান ৩০০ কেজি থাকার কথায় থাকলেও স্পটে গিয়ে দেখা যায় রয়েছে মাত্র ১৯৪ কেজি, যা পরিমানে ১০৬ কেজি কম। একই ভাবে মসুরের ডাল ৭০০ কেজি থাকার কথা থাকলেও রয়েছে মাত্র ২০২ কেজি, যা পরিমানে ৪৯৮ কেজি কম। পেঁয়াজ ৭০০ কেজি থাকার কথা থাকলে রয়েছে মাত্র ৪১৩ কেজি, যা পরিমানে কম ২৮৭ কেজি। সোয়াবিন তেল ৮০০ লিটার থাকার কথা থাকলেও রয়েছে ৭৪০ লিটার, যা পরিমানে কম রয়েছে ৬০ লিটার।

অভিযুক্ত ডিলার সিরাজুল ইসলাম জানান, মালামাল নিয়ে আসার পথে জেলা নাজির ও সিটি কলেজের মোড়ে কিছু লোকজনের মালামাল দিয়ে এসেছি যার ফলে নির্ধারিত মালামাল থেকে কিছু কম দেখাচ্ছে।

সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মির্জা সালাহউদ্দিন জানান, অনেক দিন থেকেই খবর পাচ্ছিলেন জনগনের কাছে বিক্রির নির্ধারিত পরিমান পেয়াজ, চিনি, তেলসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে আসার কথা থাকলেও কম পরিমান মালামাল এনে অর্ধেকের বেশী জনগনকে খালি হাতে ফেরত দিচ্ছিল টিসিবি ডিলার আয়ুব এন্টারপ্রাইজের স্বত্তাধিকারী সিরাজুল ইসলাম। সেই খবরের ভিত্তিতে বুধবার সকালে পুলিশ স্পটে অবস্থান নেয় এবং প্রথমে কি পরিমান মালামাল থাকার কথা সেই তালিকা নেন এবং আছে কি পরিমান তা চেক করে ডিলারের বিশাল কারসাজি ধরে ফেলেন তিনি। এটি সরাসরি জনগন ও রাষ্ট্রের সাথে প্রতারণা। রাষ্ট্র ও জনগনের সাথে এই প্রতারণার জন্য এ ডিলারের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহনের প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি আরো জানান।