আব্দুর রহমান, স্টাফ রিপোর্টারঃ রাজগঞ্জ-১ আসনের উপ-নির্বাচন বিএনপির নির্বাচনী সমাবেশে হামলা, গণসংযোগ প্রচারণায় বাঁধাসহ আওয়ামীলীগ প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ করেছেন বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক ও দলটির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।শুক্রবার (৬ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার ধানবান্ধি মহল্লায় বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল মান্নান তালুকদারের বাসভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন ধানের শীষের প্রার্থীকে স্বাভাবিকভাবে প্রচারণা ও গণসংযোগ করতে দেয়া হচ্ছে না। নির্ধারিত নির্বাচনী সভায় হামলা চালিয়ে ভন্ডুল করছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। এটা নির্বাচন নাকি প্রহসন।

তিনি বলেন, ইতিপূর্বে রাজশাহী বিভাগের ৩৯টি আসনের মধ্যে আমরা ৩৮টি আমরা পেলেও সিরাজগঞ্জ-১ (কাজিপুর) আসনটি আমরা পাইনি। এ আসনটির ফলাফল আমরা জানি। তবুও সংবিধান, গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমরা নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে থাকতে চাই।ইভিএম প্রসঙ্গে দুলু বলেন, যে দেশে ইভিএম চালু হয়েছে, সেই জার্মানীতেই তা বাতিল করা হয়েছে। তবে এখানে কেন ইভিএম। ইভিএমে প্রিজাইডিং অফিসার ইচ্ছে করলেই একাই ৫শ ভোট দিতে পারবেন। এসময় বিএনপি প্রার্থী সেলিম রেজা অভিযোগ করে বলেন, পুরো নির্বাচনী এলাকায় চলছে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের একচ্ছত্র তান্ডব। আমাকে তিনদিন ঘর থেকে বের হতে দেয়া হয়নি। লুকিয়ে গোপনে বাড়ি থেকে বেরিয়ে অন্য এলাকায় এসে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর চেষ্টা করছি। সেখানেও বাঁধা দেয়া হচ্ছে। এসব বিষয় নির্বাচন কমিশনারকে লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও সুষ্ঠু কোন সমাধান বা বিচার পাইনি।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চুর সঞ্চালনায় সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি রকিবুল হাসান রতন, যুগ্ন সম্পাদক ভিপি শামীম, রাশেদুল হাসান রঞ্জন, হারুন-অর-রশিদ খান হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা মোস্তফা জামান, কাজিপুর উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক রহমতুল্লাহ আইয়ুব প্রমূখ।