সাভার প্রতিনিধি:ঢাকার অদূরে শিল্পাঞ্চল সাভারের আশুলিয়া।
আশুলিয়া থানা ধীন ইয়ারপুর ইউনিয়ন এর জিরাবো এলাকায় ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কৃতি সন্তান, যারা জন্মগত থেকেই আওয়ামী লীগ করে আসছেন তাদের ওপর একটি কুচক্রী মহল ফেসবুকে অপপ্রচার চালাচ্ছে ।

তার প্রতিবাদে আওয়ামী লীগ পরিবার ও এলাকাবাসী তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জ্ঞাপন করেছেন , দেওয়ান মেহেদী মাসুদ মঞ্জু একজন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, জিনি ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রলীগ আওয়ামী লীগ করে আসছেন দুঃসময়ে দুর্দিনে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া আওয়ামীলীগকে বুকে লালন করেছেন তাকে নিয়েই আজ বিএনপি-জামাত-শিবিরের কিছু লোক তাকে ফেসবুকে অপপ্রচার চালাচ্ছেন।

ফেসবুকে অপপ্রচার করে সম্মান হানীর ব্যাপারে তীব্র প্রতিবাদ করেছেন দেওয়ান মেহেদী মাসুদ মঞ্জু। সম্প্রতি বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে দেওয়ান দেওয়ান মেহেদী মাসুদ মঞ্জু দেওয়ানকে জড়িয়ে পুরোনো একটি ছবি দিয়ে মিথ্যে অপপ্রচার করায় তিনি গণমাধ্যমের কাছে এ প্রতিবাদ জানান।

দেওয়ান মেহেদী মাসুদ মঞ্জু বলেন, আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। পারিবারিকভাবেই আমি ও আমার ছোট ভাই দেওয়ান রাজু আহমেদ আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত।

স্বাধীনতার অপশক্তি ও আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীদের ইন্ধনে কয়েকজন ফেসবুক নামধারী গণমাধ্যম কর্মী।
তাদের ফেসবুক আইডিতে পুরোনো একটি ছবি প্রকাশ করে সম্মানহানীকর স্ট্যাটাস দেন যা উদ্দেশ্যমূলক।

রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য হিসেবে বিভিন্ন সমাজ সেবামূলক কাজে আমরা সব সময়ই অংশগ্রহণ করে থাকি। স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা-মসজিদসহ নানা প্রতিষ্ঠানে আমাদের অবদান রয়েছে বাপ দাদার আমল থেকেই ।

দেওয়ান সালাউদ্দিন বাবু যখন স্থানীয় সংসদ সদস্য তখন তিনি এমপি হিসেবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আসতেন।

মঞ্জু দেওয়ান বলেন ,দেওয়ান ইদ্রিস স্কুল এন্ড কলেজের ও জিরাবো উচ্চ বিদ্যালয় সম্মিলিত একটি বনভোজনের আয়োজন করা হয় সেই আয়োজনে আমি জিরাবো উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি ছিলাম , তখন ওই স্কুলের পক্ষ থেকে একটি বনভোজনের আয়োজন করা হয় সেই আয়েজনে তৎকালীন সংসদ সদস্য দেওয়ান সালাউদ্দিন বাবু ছিলেন এমনি একটি স্কুলের আমন্ত্রণে অনুষ্ঠানে গেলে সকলের পাশাপাশি আমাদেরও অংশগ্রহণ করতে হয়। এসব কাজে অংশগ্রহণ করেছি বলেই আজ আওয়ামী লীগের রাজনীতির শক্তিশালী হয়ে উঠেছে।

কারণ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সেই বিপদের দিনেও আমরা প্রকাশ্যে জয় বাংলার স্লোগান দিয়েছি , সকল সেবামূলক কাজে অংশ নিয়েছি।

এমনি একটি স্কুলের অনুষ্ঠানে দেওয়ান সালাউদ্দিন বাবুর সাথে ছবি থাকায় এত যুগ পরে সেই ছবি প্রচার করা উদ্দেশ্যমূলক বটে আমি মনেকরি ।

দেশের প্রচলিত আইনে ফেসবুক বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার, গুজব সৃষ্টি, কাউকে হেয় করা আইনত দন্ডনীয়। এরপরও প্রচলিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে উপেক্ষা করে যারা এসব কাজ করে যাচ্ছেন, আমি মনে করি তারা বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার কাজে লিপ্ত রয়েছেন।

এসব ছবি প্রচার করে আওয়ামী লীগের পরিবারের ইতিহাস মুছে দেয়া যাবে না বলেও মন্তব্য করেন দেওয়ান মেহেদী মাসুদ মঞ্জু।