হালিম সৈকত,  কুমিল্লাঃ
মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলোর মধ্যে চিকিৎসা একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বাংলাদেশ চিকিৎসা ক্ষেত্রে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। কিন্তু এখনও দেশের অধিকাংশ মানুষ সঠিক  চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত।  প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ এখনও চিকিৎসার জন্য ৮-১০ কি মি পাঁয়ে হেঁটে যেতে হয়।জনসংখ্যার তুলনায় এখনও যথেষ্ট পরিমাণ চিকিৎসক  বাংলাদেশে নেই। কিংবা সরকারি চিকিৎসকগণ শহরে থাকতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।  ফলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষজন বঞ্চিত হন চিকিৎসা সেবা থেকে। প্রতি বছর ভূল চিকিৎসায় মৃত্যুবরণ করতে হচ্ছে বহু মানুষকে।    তাই মানুষের চিকিৎসার অধিকার আদায়ে গঠিত হয়েছে নিরাপদ চিকিৎসা চাই আন্দোলন। এই আন্দোলনকে আরও বেগবান করতে গত ৪ নভেম্বর কুমিল্লা জেলা আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।  বিশিষ্ট কবি, কলামিস্ট ও সংগঠক মোঃ আলী আশরাফ খানকে আহ্বায়ক করে ২৩ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন করেছেন নিচিচা’র কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান যুবরাজ খান। আগামী ৩ মাসের জন্য এই কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে।   কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, লেখক ও প্রভাষক মমিনুল ইসলাম মোল্লা,  লেখক ও সংগঠক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জাবির,  সাংবাদিক ও লেখক কাজী মোঃ খোরশেদ আলম,  সাংবাদিক সৈয়দ আহমেদ লাভলু,  এ্যাড মোঃ জাফর আলী, স্বেচ্ছাসেবক আজিম হোসেন,  সংগঠক জাকির হোসেন সরকার,  সমাজসেবক লিটন আব্বাসী,  সমাজসেবক রুবেল রানা,  সাংবাদিক, সংগঠক ও প্রভাষক হালিম সৈকত,  সাংবাদিক মোঃ এনামুল হক,  সমাজকর্মী মাহবুবুর রহমান শিশির,  সমাজকর্মী রাসেল হোসেন নয়ন,  সমাজকর্মী শাহ আলম মুন্সি,  স্বেচ্ছাসেবক রাকিব হাসান,  স্বেচ্ছাসেবক দেলোয়ার হোসেন,  জাহাঙ্গীর আলম,  দলিল লেখক ও মানবাধিকার কর্মী মোঃ এখলাছুর রহমান মুন্সি,  তরুণ উদ্যোক্তা শফিউল বাশার সুমন,  সাংবাদিক মোসা. রাজিয়া আক্তার,  সাংবাদিক মোঃ আসলাম ও আরিফুল ইসলাম রাসেল প্রমূখ।